চট্টগ্রাম রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৯ নভেম্বর, ২০২২ | ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ, তাই বিশ্বকাপ আয়োজক কাতার

এশিয়া মানে কাতার ফুটবলে সেরা দেশটির একটি। তবে বিশ্ব ফুটবলে শক্তির তুলনায় দেশটির নাম তুলনীয় নয় মোটেই। সেই কাতারই বিশ্বকাপ ফুটবলের মতো মহারণের আয়োজক। কিভাবে এই অসম্ভবকে সম্ভব করলো মরুর দেশটি। প্রকৃত কারণ অবশ্যই ফুটবল নয়, সেটা অর্থনৈতিক কাঠামো। কাতার বসবাসকারী লোকসংখ্যা এবং আয়তনের দিক থেকে কম হলেও বিপুল সম্পদের অধিকারী দেশটি। এই সম্পদের উপর ভর করেই ফিফা বিশ্বকাপের মতো বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে সমর্থ হয়েছে তারা।

 

খনিজ তেল এবং প্রাকৃতিক গ্যাসে ভরপুর কাতার। কাতারের দক্ষিণ দিকের স্থলভাগে সৌদি আরবের সঙ্গে সীমান্ত রয়েছে। বাকি সব দিকই সমুদ্রে ঘেরা। আর এই এলাকাগুলি প্রাকৃতিক গ্যাসের ভাণ্ডার। পৃথিবীতে আজ পর্যন্ত যত প্রাকৃতিক গ্যাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে, তার মধ্যে প্রায় ১০ শতাংশ রয়েছে কাতারে উত্তরদিকে সাগরের নিচে। এই খনি ছাড়া মুক্তা সংগ্রহ এবং মাছ ধরা কাতারের ৩ লক্ষ বাসিন্দাদের আয়ের অন্যতম উৎস।

 

এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ট্রানজিট হাব হিসাবে নিজেকে গড়ে তুলেছে কাতার। কাতার এয়ারলাইন্স দেশটির লাভজনক একটি সংস্থা। সারা বিশ্বেই ছড়িয়ে আছে এই এয়ারলাইন্স। আল জাজিরা নিউজ নেটওয়ার্কের সদর দপ্তরও কাতারে। তবে সবকিছুকে ছাড়িয়ে গেছে তাদের প্রাকৃতিক গ্যাসের ভাণ্ডার। এই গ্যাস রপ্তানি করে বিপুল অঙ্কের বিদেশি মুদ্রা আয় হয় কাতারের।

 

বিশ্বকাপে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণে বিপুল পরিমাণে খরচ করার পর অর্থনৈতিকভাবে লাভজনক অবস্থানে আছে দেশটি। বিশ্বকাপের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলতে কাতার খরচ করেছে প্রায় ২০০ বিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ প্রায় ২০ হাজার কোটি ডলার। দোহায় আটটি স্টেডিয়াম নির্মাণেই খরচ হয়েছে ৬৫০ কোটি ডলার। এ ছাড়াও এয়ারপোর্ট, রাস্তা, সড়ক, হোটেল এবং অন্যান্য নির্মাণকার্যের খরচ তো রয়েছেই।

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট