চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

২৩ অক্টোবর, ২০২২ | ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

২২তম বিশ্বকাপ, প্রস্তুত কাতার

মরুর দেশ কাতারে এবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলের ২২তম আসর। এশিয়ার মাটিতে দ্বিতীয় বিশ্বকাপকে স্মরনীয় করে রাখতে সম্ভাব্য সবরকম প্রস্তুতি নিয়ে রেখে স্বাগতিক কাতার। আর মাত্র ২৮ দিন পরই শুরু হবে ফুটবল মহারণের উত্তাপ। তেল সমৃদ্ধ বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশটি বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ব পাবার পর থেকে নিজেদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ শুরু করে দিয়েছিল।

 

এখন অপেক্ষা সারা বিশ্বের সামনে নিজেদের পরিশ্রমকে সফল প্রমাণের। ইতোমধ্যেই বিশ্বকাপের জন্য প্রায় ৩ মিলিয়ন টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। ফিফা সভাপতি গিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলেছেন, আমরা সবসময় বলেছি কাতার এ যাবতকালের সেরা বিশ্বকাপ উপহার দিবে। এই মুহূর্তে দেশটির দিকে তাকালেই তার প্রমাণ পাওয়া যায়। স্টেডিয়ামগুলোকে ঘিরে নির্মাণযজ্ঞ, অনুশীলন মাঠ, মেট্রো, অবকাঠামো সব মিলিয়ে সবাইকে স্বাগত জানাতে কাতার পুরোপুরি প্রস্তুত। পুরো বিশ্ব এখন মাঠের লড়াইয়ের অপেক্ষায়। কাতার প্রস্তুত, বিশ্বকাপের মঞ্চ প্রস্তুত, ফিফাও প্রস্তুত। সবাই মিলে আমরা এখন সেরা একটি বিশ্বকাপ সকলকে উপহার দেবার দ্বারপ্রান্তে রয়েছি।

 

দোহায় অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা জানিয়েছেন আট স্টেডিয়ামে আয়োজিত ৬৪টি ম্যাচের জন্য ২.৮৯ মিলিয়ন টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। ফুটবল পাগল জাতি হিসেবে পরিচিত ইংল্যান্ড, মেক্সিকো, যুক্তরাষ্ট্র, সংযুক্ত আরব আমিরাত, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, ফ্রান্স, জার্মানী ও স্বাগতিক কাতারের ম্যাচগুলোর জন্যই টিকিটের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। আয়োজকরা আরো জানিয়েছেন বিদেশি সমর্থকদের কাতারে প্রবেশের জন্য হায়া কার্ড অনুমতি হিসেবে কার্যকরী হবে। এই কার্ডের মাধ্যমে গণপরিবহনে বিনা টিকিটে ভ্রমণ ও স্টেডিয়ামে ম্যাচ টিকিটের পাশাপাশি প্রবেশের জন্য কার্যকর হিসেবে গণ্য হবে।

 

ফিফা বিশ্বকাপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কলিন স্মিথ বলেছেন, বিশ্বকাপ উপলক্ষে আমরা ১৬৮টি অফিসিয়াল সাইট চালু করেছি এবং এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট সবাইকে প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করছি। আটটি স্টেডিয়াম, স্বেচ্ছাসেবক, এক্রিডিটেশন সেন্টারগুলো পুরোপুরি কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছে। টিকেটিং সেন্টারও কাজ করছে। বিশ্বের অন্যতম সেরা একটি বিশ্বকাপ আয়োজনে যা যা প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে সেগুলোর প্রতি এখন শুধুমাত্র ফিফার আত্মবিশ্বাস ও গভীর উপলব্ধির প্রয়োজন। প্রায় এক দশকেরও বেশী সময় ধরে কঠোর পরিশ্রমের ফল পেতে যাচ্ছে কাতার।

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট