চট্টগ্রাম রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

২৮ জুলাই, ২০১৯ | ১:৫২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

অ ভাই কি হবর, তোরেতো চিনা ন যার, বহুতদিন পর দেহা

আগামী ৯০ দিনের মধ্যে ফুটবল খেলোয়াড় সমিতির নির্বাচন

অ ভাই কি হবর, তোরেতো চিনা ন যার, বহুতদিন পর দেহা—- ঠিক এ সকল কথা গতকাল বারে বারে উচ্চারিত হয়েছে এম এ আজিজ স্টেডিয়াম চত্বরে। এই উপলক্ষটা তৈরি করে দিয়েছে চট্টগ্রাম ফুটবল খেলোয়াড় সমিতির আহ্বায়ক কমিটি। গতকাল ছিল এই কমিটির বিশেষ সাধারণ সভা। এ সভায় অনেক তর্ক-বিতর্ক এবং আলোচনা সমালোচনার পর আগামী ৯০ দিনের মধ্যে চট্টগ্রাম ফুটবল খেলোয়াড় সমিতির নির্বাচনের দিন ধার্য করা হয়েছে। এই বিশেষ সাধারণ সভায় গতকাল না হলেও সহস্রাধিক ফুটবলার এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমন্যসিয়ামে মিলিত হয়েছে। চট্টগ্রাম মহানগরতো বটেই বিভিন্ন উপজেলা থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে খেলোয়াড়রা ছুটে এসেছেন ফুটবলের টানে। এমন সংখ্যা নেহাৎ কম নয় যে, এমন অনেকেই এসেছেন যারা কোন দিন খেলোয়াড় সমিতির ছায়াও মাড়ায়নি। তারা সবাই কৌতুহলী, জানতে এসেছেন কি হয়েছে এখানে এবং কি হতে যাচ্ছে। সাবেক বতর্মান ফুটবলাদের পদভারে মুখরিত হয়েছে জিমন্যাসিয়াম চত্বর। কানায় কানায় পূর্ণ এ সভায় এসে সবাই যেন আবেগে আপ্লুত। কুশলাদি বিনিময় এবং বিভিন্ন আলাপ চারিতায় এ সভায় কিছুটা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হওয়ার উদ্রেক হলেও শেষ পর্যন্ত সংশ্লিস্টদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি আয়ত্বে আসে। বিশেষ এই সাধারণ সভা চট্টগ্রাম ফুটবল খেলোয়াড় সমিতির সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা, প্রনীত খসড়া গঠন তন্ত্রের আংশিক সংশোশনে ( গভনিং বডি মুল কমিটি কোন নির্দেশনা দিতে পারবে না, তবে পরামর্শ দেয়া যাবে) অনুমোদন এবং নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র আ জ ম এতো বড় আয়োজনে বিস্ময় প্রকাশ করে গভনিং বডির কার্যক্রমের উপর আলোকপাত করেন। তিনি সাবেক ফুটবলাদের মধ্যে ঢাকা থেকে আসা এবং চট্টগ্রামের শীর্ষ পর্যায়ে প্রতিষ্ঠিত ব্যাক্তিদের দর্শক সারিতে দেখে সন্তোষ প্রকাশ করে আরো বলেন, আপনারা চট্টগ্রামের ফুটবলের উন্নয়নে একযোগে কাজ করুণ। অসচ্ছল ফুটবলারদের চিকিৎসা এবং বিভিন্ন সহযোগিতা করার জন্য একটি কল্যান ফান্ড গঠন করার আহ্বান জানিয়ে সেখানে আর্থিক অনুদান দেয়ার ঘোষনা দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদের হুইপ সামশুল হক এমপি এই কল্যাণ ফান্ডে ৫ লক্ষ টাকা অনুদানের ঘোষনা দিয়ে, চট্টগ্রামের ফুটবলের দূর্দশা চলছে। মাত্র ৭ জন ফুটবলার খেলছে বি-লিগে, জাতীয় দলে চট্টগ্রামের কেউই নাই। সেদিকে সমিতিতে দৃষ্টি দেয়ার আহ্বান জানিয়ে সার্বিক সহযোগিতার আশ^াস দেন। এতে সমিতির আহ্বায়ক মো. হাফিজুর রহমান প্রায় ১ বছর আগে দায়িত্ব পাওয়ার পরও কেন এতেটা সময় নেন তার একটা সুস্পষ্ট ব্যাখা উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, যখন দায়িত্ব নেই, তখন পেয়েছি মাত্র ৬৫০ টাকা। খেলোয়াড়দের কোন তালিকা নাই, ছিলনা কোন ভোটার লিস্ট। তাই আবার সবকিছু নতুন করে শুরু করতে হয়েছে। পূর্ব ঘোষনা মতো, পুনরায় সদস্য হতে আগ্রহী হওয়ার জন্য ২৮৭৬টি ফরম বিক্রি হয়েছে। সেখান থেকে ১৯২৭ জন রেজিস্ট্রেশন করে এবং যতটুকু সম্ভব যাচাই বাছাই করে ১৩১৩ জনকে সনাক্ত করে কার্ড দিয়েছি এবং সেই কার্ডধারীদেও নিয়েই আজকের এই বিশেষ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর আগে এ বিশেষ সাধারণ সভার উদ্বোধন করেন সাবেক ফুটবলার অমলেন্দু বিকাশ বড়–য়া। অনুভুতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন সাবেক ফুটবলার সালাউদ্দিন আহমেদম, এডওয়ার্ড জ্যাকব ও সুনীল কৃষ্ণ দে। এতে অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্ত্ব্য রাখেন শরীফ উদ্দিন টুটুল, পারভেজ মান্নান, নাছির উদ্দিন, তাহেরুল আলম স্বপন, নন্দী রাম লাতু, আব্দুল হান্নান মিরণ, বাবুল দেব, শামীম আহমেদ, মো. হাসান, মো. বাদশা, মো. আলী মইনু ও মোহাম্মদ আলী। এ সময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আশীষ ভদ্র, নজরুল ইসলাম লেদু, দীপক বড়–য়া, জসিমউদ্দিন আহমেদ, আনম নুরুল কুদ্দুস চৌধুরী ও শাহাবুদ্দিন জাহাঙ্গীর। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, সাইফুল আলম।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 290 People

সম্পর্কিত পোস্ট