চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

২৭ জুলাই, ২০১৯ | ১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

আইরিশদের লজ্জা ফিরিয়ে দিল ইংল্যান্ড

লর্ডসের মাঠে টেস্ট জয়, সেটাও আবার ক্রিকেটেরই জনক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। আয়ারল্যান্ডের এই স্বপ্নটা বাস্তবে রূপ নেয়া যেন ছিল সময়ের ব্যাপার। কিন্তু তাদের শেষটা পরিণত হল দুঃস্বপ্নে। বিশ্বকাপ জয়ের পর ইংল্যান্ড প্রথমবার মাঠে নামে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। একমাত্র টেস্ট খেলতে নেমে প্রথম ইনিংসে মাত্র ৮৫ রানে অলআউট হওয়ার লজ্জায় ডোবে। জবাবে আয়ারল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে করে ২০৭ রান। এরপর অবশ্য দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ড ৩০৩ রান করে। তাতে আয়ারল্যান্ডের সামনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ১৮৭ রান। সেই রান তাড়া করতে নেমে ১৫.৪ ওভারে মাত্র ৩৮ রানে অলআউট হয়ে যায় আয়ারল্যান্ড। যা টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সপ্তম সর্বনিম্ন স্কোর। আইরিশরা ৩৮ রানে অলআউট হওয়ার লজ্জায় ডুবলে একমাত্র টেস্টে তৃতীয় দিনেই ১৪৩ রানের বড় জয় পায় ইংল্যান্ড। এর মধ্য দিয়ে তারা ৮৫ রানে অলআউট হওয়ার লজ্জা দারুণভাবে ফিরিয়ে দেয় আয়ারল্যান্ডকে। মাত্র ১৮২ রানের লক্ষ্য। তাতে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে নিজেদের অভিষেক জয়ের স্বপ্নই দেখছিল এই সংস্করণের নতুন সদস্য আয়ারল্যান্ড। কিন্তু জয় তো দূরে থাক, কাছাকাছিও পৌঁছাতে পারেনি দলটি। বরং পড়তে হয়েছে লজ্জায়! দুই ইংলিশ পেসার ক্রিস ওকস ও স্টুয়ার্ট ব্রডের তোপে মাত্র ৩৮ রানের গুটিয়ে হেরে গেছে আইরিশরা। গতকাল শুক্রবার লর্ডসে সিরিজের একমাত্র টেস্টে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ১৪৩ রানের বিশাল জয় পেয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। সফরকারীরা হাতেগোনা রানে অলআউট হওয়ায় পেসবান্ধব উইকেটে অনুষ্ঠিত হওয়া চার দিনের ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারিত হয়ে গেছে তৃতীয় দিনেই। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি সপ্তম সর্বনিম্ন দলীয় স্কোর। আর গেল ৭৩ বছরের মধ্যে এটাই কোনো দলের সবচেয়ে কম রানে অলআউট হওয়ার নজির। ক্রিকেটের সাদা পোশাকের সংস্করণে দলীয় সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডটা এখনও নিউজিল্যান্ডের দখলে। ১৯৫৫ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই কিউইরা গুটিয়ে গিয়েছিল মাত্র ২৬ রানে। আগের দিনের ৯ উইকেটে ৩০৩ রান নিয়ে খেলতে নেমেছিল ইংল্যান্ড। দিনের প্রথম বলেই স্টুয়ার্ট থম্পসন ফেরান অলি স্টোনকে। ফলে ওই রানেই থামে দলটির দ্বিতীয় ইনিংস। জো রুটরা পান ১৮১ রানের লিড। লক্ষ্য তাড়ায় আইরিশদের দ্বিতীয় ইনিংস টিকেছে মাত্র ১৫.৪ ওভার। তাদের পক্ষে কেবল ওপেনার জেমস ম্যাককলাম দুই অঙ্কের দেখা পান। তিনি করেন সর্বোচ্চ ১১ রান। বল হাতে আগুন ঝরিয়ে ওকস আর ব্রড মিলিয়ে নেন প্রতিপক্ষের সবকটি উইকেট। ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ১৭ রানে ৬ উইকেট পান ওকস। ৪ উইকেট দখল করতে ব্রডের খরচা ১৯ রান।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 370 People

সম্পর্কিত পোস্ট