চট্টগ্রাম বুধবার, ০৩ মার্চ, ২০২১

২৫ জুলাই, ২০১৯ | ১:২৪ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

আবার আলোচনায় হাথুরুসিংহে

ভেবে চিন্তে কোচ নিয়োগ করতে চাই : পাপন

বিশ্বকাপ শেষে লন্ডনে আইসিসির বোর্ড মিটিং শেষ করে দেশে ফিরে গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। জানিয়েছেন কোচ নিয়োগে তাড়াহুড়া করতে চায় না বোর্ড। বিশ্বকাপের পরই প্রধান কোচ স্টিভ রোডসকে বিদায় জানিয়ে দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালস, স্পিন কোচ সুনীল জোশি ও ফিজিও থিলান চন্দ্রমোহনের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করতে আগ্রহী হয়নি বিসিবি। দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজনকে ভারপ্রাপ্ত কোচ হিসেবে শ্রীলঙ্কায় পাঠানো হয়েছে। পাপন বলেন, কোচ নিয়ে আমাদের প্রক্রিয়া চলছে। ফাস্ট বোলিং কোচ, ফিজিও অনেক কিছুই রয়েছে। এবার আমরা ঠান্ডা মাথায় বুঝে শুনে কোচ নিতে চাচ্ছি। আমরা পরিচিত মুখ বা আগের অভিজ্ঞতা দেখে কোচ নিয়োগ দিতে চাচ্ছি না। গুঞ্জন রয়েছে বাংলাদেশের সাবেক ও শ্রীলঙ্কার বর্তমান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে আবারও চুক্তিতে যাচ্ছে বিসিবি। যদিও বোর্ড প্রধান জানিয়েছেন, লঙ্কানদের সাবেক এই অলরাউন্ডার যদি আগ্রহী হন তাহলে সাধারণ প্রার্থী হিসেবেই বিবেচিত হবেন। পাপন বলেন, শ্রীলঙ্কার সঙ্গে সিরিজ চলছে। হাথুরুসিংহের সঙ্গে এখন কথা বলা যাবে না। সিরিজ চলাকালে কথা বলা নিষিদ্ধ। যদি তিনি আসেন তাহলেও একজন প্রার্থী হবেন। তিনি বলেন, কোচ নিয়োগে এবার নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিবো। একটি শর্টলিস্ট করবো। সেখান থেকেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রায় দুই বছর আগে বাংলাদেশ দলের কোচের পদ ছেড়ে শ্রীলঙ্কা দলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। কিন্তু তাঁর কোচিংয়ে খুব একটা সাফল্য পাচ্ছে না শ্রীলঙ্কা দল। বিশেষ করে বিশ্বকাপে বাজে পারফর্ম করে লঙ্কান দলটি। তাই শুধু সামলোচনাই নয়, হাথুরুসিংহে ও তাঁর নেতৃত্বাধীন পুরো কোচিং প্যানেলকে বরখাস্ত করার জন্য শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রী হারিন ফার্নান্দো। হাথুরুসিংহেকে নিয়ে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড কী সিদ্ধান্ত নেবে সেটা এখনো নিশ্চিত নয়। ২০১৪ সালের মে’তে বাংলাদেশ দলের কোচের দায়িত্ব পেয়েছিলেন হাথুরুসিংহে। তাঁর অধীনে দুই-আড়াই বছরে বাংলাদেশ দল দারুণ কিছু সাফল্য পেয়েছিল। ২০১৫ সালে বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল। এরপর ঘরের মাঠে ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলগুলোকে সিরিজ হারিয়েছে টাইগাররা। এরপর গত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে উঠে মাশরাফির দল। পরে ২০১৭ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশ দলের কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। এর আগে ২০০৫ সাল থেকে লঙ্কান ‘এ’ দলের কোচ ছিলেন হাথুরুসিংহে। ২০০৯ সালে তিনি জাতীয় দলের সহকারী কোচ মনোনীত হন। ২০১০ সালে জিম্বাবুয়ে সফর করে শ্রীলঙ্কা। ফাইনাল ম্যাচের আগে লেভেল থ্রি কোচিং করার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় চলে যান তিনি। যাওয়ার সময় অবশ্য কোচ ট্রেভর বেলিস ও ম্যানেজার অরুণা থিনিকোনকে অবহিত করে যান। তবে বোর্ডপ্রধানকে অবহিত না করায় তখন চাকরি চলে যায় হাথুরুসিংহের। পরে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে আবার শ্রীলঙ্কার দলের দায়িত্ব নেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 271 People

সম্পর্কিত পোস্ট