চট্টগ্রাম সোমবার, ০৮ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৫ জুলাই, ২০১৯ | ১:২৩ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

বিশ^ চ্যাম্পিয়নদের লজ্জার ব্যাটিং

বিশ্বকাপ জয়ের রেশ এখনো কাটেনি। এরই মধ্যে ইংল্যান্ড আজ নেমে পড়েছে টেস্ট অভিযানে। তবে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে ইংলিশরা চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে একশর আগেই গুটিয়ে গেছে। ১০ দিন আগে যেখানে নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছে, সেই লর্ডসে প্রথম দিন লাঞ্চের আগেই মাত্র ৮৫ রানে অলআউট হয়েছে ইংল্যান্ড! ১৯৯৭ সালে লর্ডসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৭৭ রানে অলআউট হওয়ার পর ঘরের মাঠে টেস্টে ইংল্যান্ডের সর্বনিম্ন রান এটিই। ইংলিশদের ইনিংস স্থায়ী হয়েছে মাত্র ২৩ ওভার ৪ বল। যেটি ঘরের মাঠে টেস্টে তাদের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ততম ইনিংস। ইংল্যান্ডের ইনিংস গুঁড়িয়ে দিয়েছেন টিম মুরতাগ। আইরিশ পেসার মাত্র ১৩ রানে নিয়েছেন ৫ উইকেট, লাঞ্চের আগেই নাম তুলেছেন লর্ডসের অনার্স বোর্ডে। চার দিনের এই টেস্টে টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছিলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট। বিশ্বকাপে ভালো পারফর্ম করে টেস্ট ক্যাপ পাওয়া জেসন রয় অভিষেকের শুরুটা ভালো করতে পারেননি। তৃতীয় ওভারে মুরতাগের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে রয় ক্যাচ দেন প্রথম স্লিপে। দ্বিতীয় উইকেটে ২৮ রানের জুটি গড়ে ফেলেছিলেন ররি বার্নস ও জো ডেনলি। এ জুটি ভাঙতেই ইংল্যান্ডের ধ্বংসযজ্ঞের শুরু! মার্ক অ্যাদিয়ার নিজের পরপর দুই ওভারে তুলে নেন দুই উইকেট। আর মুরতাগ ১১ বলের মধ্যে মাত্র এক রান দিয়ে নেন ৪ উইকেট! ডেনলি ও রুট- দুজনই অ্যাদিয়ারের বলে হয়েছেন এলবিডব্লিউ। রুট রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি। মুরতাগকে ভুল শটে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন বার্নস। একই বোলারের বিপক্ষে জনি বেয়ারস্টো হয়েছেন বোল্ড, ক্রিস ওকস এলবিডব্লিউ। নিজের পরের ওভারে মঈন আলীকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানিয়ে মুরতাগ প্রথম আইরিশ বোলার হিসেবে টেস্টে পাঁচ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন। তখন ৪৩ রানেই ইংল্যান্ডের ৭ উইকেট নেই। ইংলিশের টেস্ট সর্বনিম্ন ৪৫ রানের রেকর্ডটা নতুন করে লেখার শঙ্কা জেগেছিল ভালোভাবেই! স্যাম কুরানের বাউন্ডারিতে অবশ্য কেটে যায় সেই শঙ্কা। স্টুয়ার্ড ব্রডের সঙ্গে প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন কুরান। নিজের পরপর দুই ওভারে দুজনকেই ফেরান বয়েড রানকিন। শর্ট লেগে জেমস ম্যাককলামের দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হন কুরান। ৬৭ রানে ৯ উইকেট হারানোর পর ইংল্যান্ড ৮৫ পর্যন্ত যেতে পারে অভিষিক্ত ওলি স্টোন ও জ্যাক লিচের ১৮ রানের শেষ উইকেট জুটির কল্যাণে। স্টোনকে ফিরিয়ে স্বাগতিকদের ইনিংস গুটিয়ে দেন অ্যাদিয়ার। ডেনলি (২৩), কুরান (১৮) ও স্টোন (১৯) ছাড়া দুই অঙ্কে যেতে পারেননি ইংল্যান্ডের আর কেউই! তিনজন খুলতে পারেননি রানের খাতাই। মুরতাগের ৫ উইকেট ছাড়া অ্যাদিয়ার ৩২ রানে ৩টি ও রানকিন ৫ রানে নেন ২টি উইকেট।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 302 People

সম্পর্কিত পোস্ট