চট্টগ্রাম বুধবার, ২০ অক্টোবর, ২০২১

সর্বশেষ:

২ আগস্ট, ২০২১ | ১:০০ অপরাহ্ণ

হুমায়ুন কবির কিরণ 

দ্রুততম মানব জ্যাকবস

ফেবারিটের তালিকায় ছিলেন না ইতালির মার্শেল জ্যাকবস। কিন্তু গতকাল অলিম্পিকের সেরা আকর্ষণ পুরুষ ১০০ মিটার দৌড়ে বাজিমাত করলেন তিনিই। ক্যারিয়ারে উল্লেখ করার মতো কোন সাফল্য ছিল না আলেক্সান্ডার জেভেরেভের। কিন্তু তিনিই জিতলেন টোকিও অলিম্পিকে টেনিসের এককে স্বর্ণ পদক। প্রথম জার্মান পুরুষ হিসেবে অনন্য এই কীর্তিতে জায়গা করে নিলেন ইতিহাসের পাতায়। অথচ এখন পর্যন্ত কোনো গ্র্যান্ড স্ল্যামই জিততে পারেননি জেভেরেভ। উৎসব করছে ভারতও।

পিভি সিন্ধুর হাত ধরে তারা যে দ্বিতীয় পদকটি জিতে নিয়েছে। ব্রোঞ্জের লড়াইয়ে চিনের হি বিংজিয়ায়োকে হারিয়ে সুশীল কুমারের পর দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে অলিম্পিকে ব্যক্তিগত ইভেন্টে জোড়া পদক জিতলেন ব্যাডমিন্টন তারকা সিন্ধু। কিন্তু অলিম্পিকে বাংলাদেশ এথলেটদের দৌড়ের ট্রেনটা ছুটছে আগের গতিতেই। অবশ্য ছুটছে না বলে অলিম্পিকে অংশগ্রহণের সেই ১৯৮৪ সালেই ট্রেনটা থেমে আছে বলা যায়। কারণ, টানা ১০ অংশগ্রহণেও বাংলাদেশের ভাগ্যে কোন পদক উপহার দিতে পারেননি এথলেটরা। এবার ৬ জন এথলেট অংশ নিয়েছিলেন, ফলাফল শূন্য।

অলিম্পিকে গতকালের স্পটলাইটটা ছিল পুরুষদের ১০০ মিটার দৌড় ফাইনালের দিকে। যা টোকিও অলিম্পিক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬.৫০টায়। তাতে উসাইন বোল্টের পর নতুন দ্রুততম মানব পেয়েছে ক্রীড়া বিশ্ব। ফাইনাল জিতে স্পটলাইটের আলো নিজের দিকে টেনে নেন ইতালির মার্শেল জ্যাকবস। ইভেন্টটিতে রুপা জিতেন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্রেড কারলি (৯.৮৪ সেকেন্ড), ব্রোঞ্জ জিতেন আন্দ্রে দি গ্রাস (৯.৮৯ সেকেন্ড)। ওদিকে প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে দু’টি অলিম্পিক পদক জিতলেন ব্যাডমিন্টন তারকা পিভি সিন্ধু। মোট ৬ জন ভারতীয় মহিলা অলিম্পিকে পদক জিতেছেন। কিন্তু জোড়া পদক সিন্ধু ছাড়া আর কারও নেই। উল্লেখ্য প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে অলিম্পিক পদক জিতেন কর্নম মালেশ্বরী, ২০০০ সালের সিডনি অলিম্পিকে ভারোত্তোলনে তিনি ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন।

ইতিহাস গড়ে জ্যান্ডার শাফোলে ১০০ বছরেরও বেশি সময় পর অলিম্পিক গলফ থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে এনে দিয়েছেন সোনার পদক। গতকাল ররি সাবাতিনিকে হারিয়ে এই কীর্তি গড়েন শাফোলে। এর আগে গলফ থেকে যুক্তরাষ্ট্র সবশেষে সোনা জিতেছিল ১৯০৪ সালে। অবশ্য ওই আসরের পর ১০০ বছরের বেশি সময়ের বিরতি দিয়ে ২০১৬ সালে রিও ডি জেনেইরো অলিম্পিকে ফিরেছিল গলফ।

গতকালই আসরে সুইমিং ইভেন্ট শেষ হয়েছে। শেষটা রেকর্ডে রাঙিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। পুরুষ ১০০ মিটার মিডলে রিলের সোনা তারা জিতেছে নিজেদেরই বিশ্বরেকর্ড ভেঙে। টোকিওর অ্যাকুয়াটিস সেন্টারে গতকাল ৩ মিনিট ২৬ দশমিক ৭৮ সেকেন্ড সময় নিয়ে নতুন রেকর্ড গড়ে যুক্তরাষ্ট্র। ২০০৯ সালে ইতালির রোমে ৩ মিনিট ২৭ দশমিক ২৮ সেকেন্ড টাইমিং করে এ ইভেন্টে আগের বিশ্বরেকর্ডটি গড়েছিল তারা।

এদিকে খারাপ সময়টা অব্যাহত আছে সিমোনা বাইলসের। নিজের বিভিন্ন ইভেন্ট থেকে মানসিক সমস্যার কারণে সরে দাঁড়ানোর শেষ ইভেন্ট ফ্লোর ফাইনালও খেলছেন না তিনি। ইউএসএ জিমন্যাস্টিকস গতকাল বাইলসের ফ্লোর ইভেন্ট থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত করে।

প্রসঙ্গত ২৪ বছর বয়সী এই তারকা ক্যারিয়ারে ওয়ার্ল্ড ফ্লোর এক্সারসাইজের মুকুট জিতেছেন পাঁচবার- ২০১৩, ২০১৪, ২০১৫, ২০১৮ ও ২০১৯। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সফলতম এই জিমন্যাস্ট ২০১৬ রিও অলিম্পিকে জিতেছিলেন চারটি সোনা ও একটি ব্রোঞ্জ।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 260 People

সম্পর্কিত পোস্ট