চট্টগ্রাম রবিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১

৩ জুন, ২০১৯ | ২:০০ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

ওভাল যেন একখ- বাংলাদেশ

তাদের দু’জনের পরনে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পোশাক লুঙ্গি, মাথায় মাথাল, গলায় গামছা। ঠিক যেন ধানক্ষেতে কাজ করা দুই কৃষক। তবে এই দৃশ্যটি কোনো ধানক্ষেতের নয়, বাংলাদেশেরও কোনো স্থানের নয়। লন্ডনের ওভাল মাঠে যখন প্রোটিয়া বোলারদের তুলোধুনো করছেন তামিম-সৌম্য-সাকিব-মুশফিক, ঠিক তখনই এমন দু’জনকে দেখা গেল ওভালের গ্যালারিতে। টাইগার ব্যাটসম্যানদের একেকটি চার-ছক্কার সঙ্গে সঙ্গে ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ ধ্বনিতে গ্যালারি মাতিয়ে রাখছিলেন তারা। কৃষক বেশের এই দুই টাইগারভক্তই কেবল নয়, গোটা ওভালের গ্যালারিতেই এদিন বাংলাদেশি সমর্থকদের আধিক্য। হবেই বা না কেন, এটি যে চলতি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ। প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। খেলা শুরুর আগ থেকেই সাজ সাজ রব লন্ডন আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে শুরু করে সব দিকে। সবার গন্তব্য ওভাল স্টেডিয়াম, যেখানে খেলতে নামবে বাংলাদেশের মাশরাফি, সাকিব, তামিমরা। স্টেডিয়ামের প্রবেশপথে ম্যাচ শুরুর আগেই উল্লাস। কেউ ‘জয় বাংলা’ বলে, কেউ বা ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ আওয়াজ তুলে। প্রায় সবার হাতেই লাল-সবুজের পতাকা। আর বাংলাদেশের জার্সি পরে সবাই উল্লসিত খেলার শুরুর আগে থেকেই। টস হেরে বাংলাদেশ যখন ব্যাটিংয়ে, তখন প্রায় পুরো গ্যালারিই একসঙ্গে আবার মুখরিত স্লোগানে। সৌম্য, তামিমের ব্যাটিংয়ে পুরো ওভাল এমনভাবে উল্লসিত হচ্ছিল যেন খেলা হচ্ছে বাংলাদেশের মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে। ইংল্যান্ড প্রবাসী সিলেটের সাব্বির আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়রা বিশ্বমঞ্চে দেশের প্রতিনিধিত্ব করছে। দর্শক হিসেবে আমরা তাই চাই আমাদের খেলোয়াড়দের সর্বোচ্চ সমর্থন দিয়ে যেতে। আর তাই আমরা প্রবাসীরা সবাই আজ মাঠে দেশের পতাকা নিয়ে। খেলা দেখতে এসে মনে হচ্ছে পুরো ওভালই যেন একখ- বাংলাদেশ।’ আরেক ইংল্যান্ড প্রবাসী দিনাজপুরের ওমর শরীফ রনী বলেন, ‘বিশ্বের যে প্রান্তেই থাকি না কেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটের খবর আমরা সবসময়েই রাখি ও দলকে সমর্থন দিয়ে যাই। যেখানে দেশের খেলোয়াড়রা মাঠে নেমে নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করে খেলবে, সেখানে তাদের সমর্থন দিতে আমরা আসতে পেরে গর্বিত। ইনশাল্লাহ বাংলাদেশের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ব, জয় বাংলা।’ লন্ডন প্রবাসী কুমিল্লার শৈশব আহমেদ ওভালের গ্যালারিতে গিয়েছেন সপরিবারে। তিনি বলেন, লন্ডনে আছি আর বাংলাদেশের খেলা মাঠে গিয়ে দেখব না, এ তো হতেই পারে না।
বিশ্বকাপের সফরসূচি প্রকাশের পর থেকে অপেক্ষায় ছিলাম, প্রথম ম্যাচটি মাঠে বসেই দেখব। আজ সেই অপেক্ষার অবসান ঘটেছে। সৌম্য-সাকিব-মুশফিকের ব্যাটিং দেখে মনে হচ্ছে, এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ গর্ব নিয়েই ফিরবে। গ্যালারির উল্লাস আর উচ্ছ্বাস বেড়েই চলে টাইগারদের নিপুণ ব্যাটিং প্রদর্শনীতে। হোম অব ক্রিকেটে বাঘা বাঘা দলকে যেভাবে ধরাশায়ী করেছে টাইগাররা, ওভালেই বা কেন সেই স্বপ্ন পূরণ হবে না!

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 270 People

সম্পর্কিত পোস্ট