চট্টগ্রাম রবিবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১৯ মে, ২০১৯ | ১:২৪ অপরাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

উপনির্বাচনে থাকছেন না মান্না: প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় সিরাজ

বগুড়া-৬ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে দাঁড়াতে নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার অপরাগতা প্রকাশ করার পর এবার আলোচনা শুরু হয়েছে বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজকে নিয়ে।

গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বগুড়া-৬ (সদর) আসনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচিত হন। তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শপথ না নেওয়ায় ৩০ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। এরপর নির্বাচন কমিশন উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। সেই অনুযায়ী আগামী ২৪ জুন উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২৩ মে মনোনয়নপত্র জমার শেষ দিন।

বিএনপির পক্ষ থেকে মান্নাকে প্রস্তাব দেওয়া হলেও তিনি নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। সে ক্ষেত্রে বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক সিরাজকে প্রার্থী করা হতে পারে- এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। আলোচনায় আছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও।তবে দলের নেতারা জানান দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রার্থী নির্বাচনের ব্যাপারটি চূড়ান্ত করবেন।

বিজ্ঞাপন

তবে বগুড়া জেলার বাসিন্দা এমন কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হলে সেক্ষেত্রে এগিয়ে থাকবেন গোলাম মোহম্মদ সিরাজ। গত শুক্রবার বিকালে বগুড়ায় জেলা বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, ‘ আমি এখনো কিছুই জানি না। দল যদি মনে করে আমি যোগ্য, আমাকে তারা প্রার্থী করবেন, সে ক্ষেত্রে আমি প্রস্তত। আমাকে মনোনয়ন দিলে আপত্তি করব না।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট সাইফুল ইসলাম, ফজল্লুল বারী তালুকদার বেলাল, সাবেক সাংসদ হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বগুড়া পৌরসভার মেয়র এডভোকেট একেএম মাহবুবুর রহমান, বিএনপি বগুড়া জেলা কমিটির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা প্রমুখ।

ওই সময়ে দলের পক্ষ থেকে বলা হয় এখন থেকে বিএনপি সংসদ ও সংসদের বাইরে সমান তালে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবিতে সোচ্চার হবেন। সম্প্রতি দলের চার এমপি একরকম দলকে বাধ্য করে শপথ নিয়ে সংসদে যোগ দিয়েছেন। সে ক্ষেত্রে প্রথমেই স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের নাম আলোচনায় আসছে। এর আগেও মওদুদ খালেদা জিয়ার ছেড়ে দেওয়া বগুড়া-৬ থেকে নির্বাচন করেছেন। তিনি রাজি না হলে স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বরচন্দ্র রায়কে বেছে নিতে পারেন। জিয়া পরিবারের আস্থাভাজন ও ঘনিষ্ঠ এই নেতা দলের নেতাকর্মীদের কাছেও বেশ জনপ্রিয়। তবে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথিকে প্রার্থী করার জন্য নানা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন দল ও দলের বাইরের একটি অংশ ।

আলোচনায় আছেন যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও তরুণ নেতাদের মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠা সাবেক সংসদ সদস্য জহির উদ্দিন স্বপন।

এদিকে দলের পাঁচ এমপি শপথ নেওয়ার পর এবার সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির প্রার্থী কে- এ নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। আগামীকাল সোমবারের মধ্যেই সংরক্ষিত আসনে বিএনপির নারী প্রার্থীর নাম ঘোষণা করতে হবে। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সংশ্লিষ্ট নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাবেক সংসদ সদস্য রেহেনা আক্তার রানু, আশিফা আশরাফি পাপিয়া, নিলোফার চৌধুরী মণি ও হেলেন জেরিন খান, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, সহআন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরীকে নিয়ে বেশ আলোচনা চলছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 430 People

সম্পর্কিত পোস্ট