চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১৮ মে, ২০১৯ | ৩:০৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঘরমুখো মানুষের জন্য বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকেই নগরীর বিভিন্ন কাউন্টারে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়। প্রিয়জনের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে আগে থেকেই অগ্রিম টিকিট নিতে গতকাল শুক্রবার সকাল থেকেই নগরীর কাউন্টারগুলোতে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় দেখা গেছে। অনেকেই সকাল সকাল কাউন্টারে এসে নিজের পছন্দে টিকিট কেটে নিলেও আবার অনেকেই পছন্দ অনুযায়ী টিকেট না পাওয়ায় কথা জানিয়েছেন। পাশাপাশি অতিরিক্ত টাকা আদায়েরও অভিযোগ করেছেন অনেক যাত্রী। তবে বাড়তি ভাড়া আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন বাস মালিকরা। তারা বলেন, মালিক-

শ্রমিকদের নির্দেশে যেটা ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে সেটাই নেয়া হচ্ছে। গতকাল শুক্রবার নগরীতে ঘুরে দেখা যায়, নগরীর দামপাড়া, বিআরটিসি, একেখান, অলংকার, বড়পোল, সিনেমাপ্যালস-সহ সবকটি কাউন্টারেই টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে কাঙ্খিত দিনের টিকিট কাটার অপেক্ষায় থাকতে দেখা গেছে অনেক কাউন্টারে। তবে এখনো সব বাসের পুরোপুরি অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু না করলেও কয়েকটি বাসের অগ্রিম টিকিট দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
বাস কাউন্টারের টিকিট সেল্সম্যানদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এবার ৩০ মে পড়ছে বৃহস্পতিবার। ওই দিন রাতে টিকিটের জন্য চাপ অনেক বেশি। পরদিন শুক্রবার সকালের টিকিটের চাপও বেশি। এরপর ৩ জুনের টিকিটের চাহিদা বেশি।
বিআরটিসি শ্যামলী কাউন্টার থেকে ৩ তারিখের বগুড়ার অগ্রিম টিকিট নিয়ে মাহমুদ রহমান বলেন, সকালে এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি। দীর্ঘ এক ঘণ্টা পর কাঙ্খিত টিকিটটি হাতে পেয়েছি। তবে টিকিটের অতিরিক্ত দাম নেয়া হয়েছে।
শুধু মাহমুদ নয়, আরও কয়েকজন টিকিট প্রত্যাশীর সঙ্গে কথা বলেও এমন তথ্য পাওয়া গেছে। তবে এসব বিষয় অস্বীকার করেছেন বাস কর্তৃপক্ষ।
অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে সৌদিয়া পরিবহনের ইনচার্জ (চট্টগ্রাম) মো. সেলিম রেজা পূর্বকোণকে বলেন, ‘উত্তর বঙ্গের সব রুটের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। সকাল থেকেই টিকিট প্রত্যাশীদের কাউন্টারে ভিড় ছিল। আমরাও যাত্রীদের পছন্দ অনুযায়ী কাঙ্খিত দিনের টিকিট দেয়ার চেষ্টা করছি। প্রথম দিনেই প্রায় ৩০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হয়েছে। তবে অন্য ঈদের তুলনায় এবার অনেক কম বিক্রি হয়েছে বলে জানান তিনি’।
তিনি বলেন,‘এখন পর্যন্ত পর্যাপ্ত টিকিট রয়েছে। সবার চাহিদা ২ ও ৩ তারিখের টিকিটের। আজ (শনিবার) থেকে হয়তো আরও বেশি টিকিট বিক্রি শুরু হবে। তবে যাত্রীর অবস্থা চিন্তা করে অতিরিক্ত বাস যোগ করার কথা জানান তিনি’। অতিরিক্ত টাকা আদায়ের বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন,‘সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ভাড়াই নেয়া হচ্ছে। কোন বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে না’।
চট্টগ্রাম নগরী থেকে উত্তরবঙ্গের টিকিটের চাহিদা বেশি। ওই রুটের সব বাসের টিকিট এখনো ছাড়া না হলেও শুধুমাত্র সৌদিয়া ও শ্যামলী বাস তাদের অগ্রিম টিকিট ছেড়েছেন। অন্যবাসগুলোর আগামী দু’একদিন পর অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন কাউন্টারে থাকা টিকিট সেল্সম্যানরা।
বিআরটিসি শ্যামলী পরিবহনের টিকিট সেল্সম্যান সুশান্ত পূর্বকোণকে বলেন, ‘সকাল থেকেই অগ্রিম টিকিটের জন্য প্রত্যাশীদের ভিড় ছিল। দুপুরের পর তা কিছুটা কমেছে। প্রথম দিনেই আমাদের প্রায় ৪০ শতাংশ টিকিট বিক্রি শেষ। বেশি টিকিট বিক্রি হয়েছে ২ ও ৩ তারিখের। আগের তুলনায় কিছুটা কম হলেও প্রথম দিন হিসেবে প্রত্যাশা অনুযায়ী টিকিট বিক্রি হয়েছে বলে জানান তিনি’।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 397 People

সম্পর্কিত পোস্ট