চট্টগ্রাম রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ | ৪:০৮ অপরাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক

ভেজাল ওষুধ বিক্রেতাদের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত: হাইকোর্ট

ভেজাল ওষুধ বিক্রির সাথে যারা জড়িত তাদের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন উচ্চ আদালত। এছাড়া একই ফার্মেসিতে একাধিকবার মেয়াদোত্তীর্ণ ও ভেজাল ওষুধ পাওয়া গেলে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করার নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ সময় কমিশন খেয়ে চিকিৎসকদের অপ্রয়োজনীয় ওষুধ প্রেসক্রাইব করারও সমালোচনা করেন আদালত।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এবিএম আলতাফ হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী কামরুজ্জামান কচি। বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের ‘মেয়াদোত্তীর্ণ, নকল ও ভেজাল ওষুধ বিক্রয়ে গৃহীত কার্যক্রম’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন আদালতে দাখিলের পর মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন। আদালত এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ১২ ডিসেম্বর দিন নির্ধারণ করেন।

রাজধানীর ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি করা হয় গণমাধ্যমের এমন রিপোর্টের আলোকে গত জুনে রিট করে একটি বেসরকারি সংগঠন। ওই সময় মেয়াদোত্তীর্ণ ও নকল ওষুধ জব্দের নির্দেশ দেন আদালত।

এ সময় আদালত জানান, শুধু ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দিয়ে এসব বন্ধ করা যাবে না। বন্ধ করতে হবে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করে শাস্তির মাধ্যমে।

ডেপুটি অ্যার্টনি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার বলেন, এরইমধ্যে যাদের জেল জরিমানা করা হয়েছে, তারা যদি আবার একই কাজ করে তখন তাদের বিরুদ্ধে স্পেশাল অ্যাক্টে মামলা দায়েরের জন্য মৌখিকভাবে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

পূর্বকোণ/পিআর

The Post Viewed By: 63 People

সম্পর্কিত পোস্ট