চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৫ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:১০ পূর্বাহ্ন

ইমরান বিন ছবুর

নগরীর থানা ও উপজেলায় বইয়ের চাহিদা ৪৮ লাখ

২১ লাখ বই এসে পৌঁছেছে

প্রাথমিক ও প্রাক প্রাথমিক হ ‘ডিসেম্বরের মধ্যেই সব বই পৌঁছে যাবে’

প্রাথমিক ও প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির ২০২০ শিক্ষাবর্ষের ২১ লাখ ১০ হাজার ১৩৫টি বই ইতোমধ্যে থানা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে পৌঁছে গেছে। চট্টগ্রাম জেলার ২০টি থানা ও উপজেলায় প্রাথমিক ও প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির ৪৮ লাখ ১৪ হাজার ২০৪টি বইয়ের চাহিদা রয়েছে। চাহিদার বিপরীতে গত অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে বই আসতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে চাহিদার মোট ৪৪ শতাংশ বই থানা ও উপজেলায় শিক্ষা অফিসে পৌঁছে গেছে। ডিসেম্বরের মধ্যে চাহিদা অনুযায়ী সব বই থানা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তারা।
এ সম্পর্কে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের মনিটরিং অফিসার নুর মোহাম্মদ জানান, গত অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে প্রাথমিক ও প্রাক-প্রাথমিক বই আসতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে ৪৪ শতাংশ বই এসেছে। ২০২০ শিক্ষাবর্ষে বইয়ের চাহিদা হচ্ছে ৪৮ লাখ ১৪ হাজার ২০৪টি। এর বিপরীতে ইতোমধ্যে ২১ লাখ ১০ হাজার ১৩৫টি বই থানা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে পৌঁছে গেছে। এভাবে বই আসতে থাকলে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে সব বই চলে আসবে বলে আশা করছি।
চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের তথ্য মতে, নগরীর ৬টি শিক্ষা থানায় ২০২০ শিক্ষাবর্ষে ১৬ লাখ ৮৪ হাজার ৪০৪টি বইয়ের চাহিদা রয়েছে। চাহিদার বিপরীতে ইতোমধ্যে ৬ লাখ ৪৭ হাজার ৭২৭টি বই পৌঁছে গেছে। ১৪টি উপজেলার মধ্যে সন্দ্বীপ উপজেলায় ১ লাখ ৯১ হাজার ৯৩৪টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে ৯৯ হাজার ৪৫০টি বই উপজেলা শিক্ষা অফিসে পৌঁছে গেছে। সীতাকু- উপজেলায় ২ লাখ ২৩ হাজার ৩৫০টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে ১ লাখ ১৫ হাজার বই পৌঁছে গেছে। মিরসরাই উপজেলায় ২ লাখ ১০ হাজার ৯২১ টি বইয়ের চাহিদা রয়েছে। এর বিপরীতে বই এসেছে ১ লাখ ৬ হাজার ১১৭টি। হাটহাজারী উপজেলায় বইয়ের চাহিদা হচ্ছে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৭১০টি। এর বিপরীতে বই এসেছে ৮৮ হাজার ৪৪০টি।
একইভাবে ফটিকছড়ি উপজেলায় ২ লাখ ৯৪ হাজার ৬৯০টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে এসেছে ১ লাখ ৪৮ হাজার ১৯৫টি। রাউজান উপজেলায় বই এসেছে ১ লাখ ১১ হাজার ৪৩৫টি। যেখানে চাহিদা ২ লাখ ১০ হাজার ৮৫২ টি বইয়ের। রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় ১ লাখ ৯৫ হাজার ৬১৬টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে এসেছে ১ লাখ ২৬৫টি। বোয়ালখালী উপজেলায় ১ লাখ ৪৭ হাজার ৯০০টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে বই এসেছে ৭৬ হাজার ৯৫০টি। পটিয়া উপজেলায় ৩ লাখ ৪৪ হাজার ৭৭২টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে বই এসেছে ১ লাখ ৮২ হাজার ৬০২টি।
এছাড়া, চন্দনাইশ উপজেলায় বই এসেছে ৭৫ হাজার ২৮০টি। যেখানে চাহিদা ১ লাখ ৪৬ হাজার ৫৫০ বইয়ের। সাতকানিয়া উপজেলায় ২ লাখ ৫০ হাজার ৫০০ বইয়ের চাহিদার বিপরীতে এসেছে ১ লাখ ২৪ হাজার ৩০০টি। সাতকানিয়া উপজেলায় ১ লাখ ২৪ হাজার ৩০০টি বই এসেছে। যেখানে চাহিদা ২ লাখ ৫০ হাজার ৫০০টি। লোহাগাড়া উপজেলায় ১ লাখ ৭৩ হাজার ৩২৫টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে বই এসেছে ৮৫ হাজার ৮৪৬টি। বাঁশখালী উপজেলায় ৩ লাখ ১৪ হাজার ৪৬০টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে ১ লাখ ৫৬ হাজার ১০৩টি এবং আনোয়ারা উপজেলায় ১ লাখ ৮৫ হাজার ২২০টি বইয়ের চাহিদার বিপরীতে ৯১ হাজার ৮৭৫টি বই এসেছে।

The Post Viewed By: 61 People

সম্পর্কিত পোস্ট