চট্টগ্রাম রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২২ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:০৩ am

৪ বছরে ২১ হাজার ৩৮৬ দুর্ঘটনা ২৯ হাজার ৩১৫ জনের মৃত্যু

আজ জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস

আজ জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস। ‘জীবনের আগে জীবিকা নয়, সড়ক দুর্ঘটনা আর নয়’-এ প্রতিপাদ্য নিয়ে তৃতীয়বারের মতো দিবসটি পালিত হতে যাচ্ছে। দিবসটি পালনে বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

এরমধ্যে রয়েছে ক্রোড়পত্র প্রকাশ, আলোচনা সভা, র‌্যালি ও সড়ক সচেতনতা কার্যক্রম। দিবসের শুরুতে সকাল সাড়ে ৭টায় জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজা থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হবে। সকাল ১০টায় ফার্মগেট কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। বিকেল চারটায় রাজধানীর বিভিন্ন বাস টার্মিনালসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সড়ক নিরাপত্তা সংক্রান্ত ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হবে। এর পাশাপাশি পরিবহন মালিক, চালক, যাত্রী ও পথচারীদের সচেতন করার লক্ষ্যে বিতরণ করা হবে লিফলেট, পোস্টার ও স্টিকার। এছাড়া গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিটিভিসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে আলোচনা ও বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দেশের সব জেলা ও উপজেলায় এ দিবসে শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা ও সড়ক নিরাপত্তা সংক্রান্ত ভিডিও চিত্র প্রদর্শনের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে বলে জানান সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের।-বাংলানিউজ

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত চার বছরে দেশে মোট ২১ হাজার ৩৮৬টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব দুর্ঘটনায় ২৯ হাজার ৩১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৬৯ হাজার ৪২৮ জন। এ সময়ে সংগঠিত সড়ক দুর্ঘটনায় সর্বমোট ৩১ হাজার ৯৪টি যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ সব যানবাহনের মধ্যে ২১ দশমিক ৩৩ শতাংশ বাস, ২১ দশমিক ১৮ শতাংশ ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ৬ দশমিক ৮৭ শতাংশ প্রাইভেটকার-জিপ-মাইক্রোবাস, ১৪ দশমিক ২৫ শতাংশ অটোরিকশা, ১৮ দশমিক ৩৩ শতাংশ মোটরসাইকেল, ৯ দশমিক ১৮ শতাংশ ব্যাটারিচালিত অটো রিকশা, ৮ দশমিক ৮৩ শতাংশ নছিমন-করিমন ও ট্রাক্টর সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২০১৫ সালে ৬ হাজার ৫৮১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৮ হাজার ৬৪২ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ২১ হাজার ৮৫৫ জন। ২০১৬ সালে ৪ হাজার ৩১২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ হাজার ৫৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৫ হাজার ৯১৪ জন। ২০১৭ সালে ৪ হাজার ৯৭৯টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ হাজার ৩৯৭ জন নিহত এবং ১৬ হাজার ১৯৩ জন আহত হয়েছেন। ২০১৮ সালে ৫ হাজার ৫১৪টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ হাজার ২২১ জন নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে ১৫ হাজার ৪৬৬ জন।

সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী এ প্রতিবেদন করে সমিতিটি। তবে সংগঠিত দুর্ঘটনার সিংহভাগই সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয় না বলেও জানায় তারা। গতকাল সোমবার যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে সড়ক-মহাসড়কে উন্নয়নের ফলে যানবাহনের গতি বেড়েছে। এ সময়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো এবং বিপদজনক অভারটেকিং বেড়ে যাওয়ার কারণে সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা বাড়ছে। আয়তন ও জনসংখ্যার ঘনত্বের তুলনায় বাংলাদেশে যেভাবে ছোট যানবাহনের সংখ্যা বাড়ছে তা দ্রুত নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে দুর্ঘটনা ও যানজট নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়বে বলেও জানান সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল।

The Post Viewed By: 93 People

সম্পর্কিত পোস্ট