চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ | ৪:৪২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

তুহিন হত্যা মামলায় ২ জনের স্বীকারোক্তি

দেশজুড়ে চাঞ্চ‌ল্যকর শিশু তুহিন হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই হত্যার বিবরণ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান। গত রবিবার (১৩ অক্টোবর ) প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই ছেলে তুহিনকে হত্যা করে তার বাবা ও চাচা। এ ঘটনায় তুহিনের মায়ের দায়ের করা মামলায় বাবা ও চাচাসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ সুপার বলেন মো. মিজানুর রহমান, ‘বাবার কোলই পৃথিবীতে শিশুর জন্য সবচেয়ে নিরাপদ স্থান। কিন্তু বাবার কোলেই হত্যা করা হয়েছে তুহিনকে। পরে কেটে ফেলা হয় তার শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ। এরপর পেটে দুটি ছুরি ঢুকিয়ে ঝুলিয়ে রাখা হয় গাছের সঙ্গে। এ ঘটনায় তুহিনের বাবা আবদুল বাছিরের সঙ্গে তার ভাই নাসির মিয়া ও ভাতিজা শাহরিয়ারও জড়িত ছিলেন।

এর আগে বিকালে তুহিনের বাবা আবদুল বাছির (৪০), চাচা আবদুল মছব্বির (৪৫) ও প্রতিবেশি জমসের আলীকে (৫০) তিনজনকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। একই সময় তুহিনের আরেক চাচা নাসির উদ্দিন (৩৪) ও চাচাতো ভাই শাহরিয়ার (১৭) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। সোমবার (১৪ অক্টোবর) দুপুর থেকে এই পাঁচজন রয়েছেন পুলিশ হেফাজতে।

প্রসঙ্গত, রবিবার (১৩ অক্টোবর) রাতে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউরা গ্রামে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় শিশু তুহিনকে। পরে সোমবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গলায় রশি ও পেটে ঢোকানো দুটি লম্বা ছুরিসহ তুহিনের রক্তাক্ত নিথর দেহ কদমগাছের ডালে ঝুলছিল। শুধু তাই নয়, তার দুটি কান ও যৌনাঙ্গও কেটে ফেলা হয়। ঘটনার পর সোমবার (১৪ অক্টোবর) রাতে অজ্ঞাত ১০ থেকে ১২ জনের বিরুদ্ধে দিরাই থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন নিহত তুহিনের মা মনিরা বেগম। এ মামলায় এ পর্যন্ত  পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পূর্বকোণ/রাশেদ

The Post Viewed By: 472 People

সম্পর্কিত পোস্ট