চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৫২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক হ ঢাকা অফিস

নির্ধারিত দিনেই ভর্তি পরীক্ষা

আবরার ফাহাদ হত্যা২ দিন কর্মসূচি শিথিল হ বুয়েট ছাত্রলীগ সভাপতি ও সম্পাদকের রুম সিলগালা হ অনিক সরকারের স্বীকারোক্তি হ মাজেদুর ৫ দিনের রিমা-ে

 

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা জেরে অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছিল আসন্ন ভর্তি পরীক্ষা। দাবি পূরণে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাস বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষার জন্য কর্মসূচি শিথিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে, আবরার ফাহাদ হত্যামামলায় রিমান্ডে থাকা বহিষ্কৃত বুয়েটছাত্র অনিক সরকার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এদিকে গ্রেপ্তার আরেক আসামি মাজেদুর রহমান নওরোজকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের হেফাজতে পেয়েছে পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশের অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ফজলুর রহমান জানিয়েছেন, অনিক সরকার ১৬৪ ধারায় জবাববন্দি দিয়েছেন। মহানগর হাকিম আতিকুল ইসলাম তার খাস কামরায় আসামির জবানবন্দি নেন।

গত ৬ জুন আবরার গত ৬ জুন আবরার খুন হওয়ার পরপরই যে ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল, তাদের একজন অনিক। গ্রেপ্তারের পর তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছিল পুলিশ। খুন হওয়ার পরপরই যে ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল, তাদের একজন অনিক। গ্রেপ্তারের পর তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছিল পুলিশ। এ নিয়ে ছয় দিনে মোট ১৯ জন গ্রেপ্তার হলেন।

গতকাল শনিবার অনিককে ঢাকার আদালতে নিয়ে তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেওয়ার আবেদন জানায় মামলা তদন্তের দায়িত্বে থাকা ডিবি। বুয়েট ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পঞ্চদশ ব্যাচের শিক্ষার্থী। আবরারের বাবার করা মামলায় আসামি হওয়ার পর তাকে বহিষ্কার করে ছাত্রলীগ। এই হত্যামামলায় এর আগে বুয়েট ছাত্র মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন ও ইফতি মোশাররফ সকাল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
এদিকে, আবরার হত্যাকা-ের পর আসামির তালিকায় থাকা মাজেদুল ইসলামকে গত শুক্রবার সিলেট থেকে গ্রেপ্তারের পর গতকাল ঢাকার আদালতে হাজির করা হয়। আদালতের এজলাসে দাঁড়িয়ে মাজেদুল ছিলেন নির্লিপ্ত। আদালতে তিনি জানান, তার নামটি ভুল বলেছে পুলিশ। বহিষ্কৃত এই বুয়েট ছাত্র বলেন, ‘আমার নাম মাজেদুর রহমান নওরোজ। পুলিশ ভুল করে মাজেদুল ইসলাম লিখেছে।’

বলাবাহূল্য, আবরারের বাবা ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় গত সোমবার যে মামলাটি করেন, সেখানে আসামির তালিকায় ৮ নম্বরে মাজেদুল ইসলামের নাম রয়েছে। গ্রেপ্তারের সময়ও পুলিশ নাম ‘মাজেদুল’ই বলেছিল।

আন্দোলন শিথিল, নির্ধারিত দিনেই ভর্তি পরীক্ষা : দাবি পূরণে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাস বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও ভর্তি পরীক্ষার জন্য কর্মসূচি শিথিলের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা। আবরার ফাহাদ হত্যাকা-ের পর টানা আন্দোলনে বুয়েটের এবারের ভর্তি পরীক্ষা অনিশ্চয়তায় পড়ে। গত শুক্রবার উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠকে আশ্বাস পেলেও কর্মসূচি থেকে পিছু হটছিলেন না আন্দোলনকারীরা।

এদিকে, আন্দোলনকারী বিভিন্ন দাবি মেনে বুয়েট কর্তৃপক্ষ গতকাল সকালে বিজ্ঞপ্তি জারির পরও ক্যাম্পাসে মিছিল নিয়ে বেরিয়েছিলেন শিক্ষার্থীরা। দুপুরে ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এক সমাবেশ থেকে ভর্তি পরীক্ষার জন্য আগামী রবি ও সোমবার কোনো কর্মসূচি না রাখার সিদ্ধান্ত জানানো হয় আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে। আন্দোলনকারীদের এক প্রতিনিধি জানান, ১৩ ও ১৪ তারিখ ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে আন্দোলন শিথিল করছি। ভর্তিচ্ছু ১২ হাজার পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের এই সময় সর্বোচ্চ সহায়তা দেব। আন্দোলনকারীরা সোমবার বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে যাওয়া শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবিও জানিয়েছে। আন্দোলন অব্যাহত থাকবে কিনা জানতে চাইলে ওই প্রতিনিধি বলেন, আমাদের আন্দোলন যেহেতু ১০ দফার ভিত্তিতে শুরু হয়েছে, সেহেতু আমরা আমাদের আন্দোলন তুলে নিচ্ছি না। শুধু দুই দিনের জন্য শিথিল করছি।

বুয়েট ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের রুম সিলগালা : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) বিভিন্ন আবাসিক হলে চলছে পুলিশের অভিযান। অভিযানে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি খন্দকার জামিউশ সানি এবং সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলের কক্ষ সিলগালা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল শনিবার বুয়েটের ছাত্র কল্যাণ উপদেষ্টা (ডিএসডব্লিউ) মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে আহসান উল্লাহ হলে ছাত্রলীগের সভাপতি ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র জামি উস সানির ৩২১ নম্বর কক্ষ এবং শেরে বাংলা হলে সাধারণ সম্পাদক ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের মেহেদী হাসান রাসেলের ৩০১২ নম্বর কক্ষ সিলগালা করে বন্ধ করা হয়। পরে অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলেন, ছাত্রদের দাবির প্রেক্ষিতে আমরা ঘোষিত পদক্ষেপ অনুযায়ী হলে অবৈধ ছাত্রদের রুম সিলগালা করা শুরু করেছি। সিম্বলিক পদক্ষেপ হিসেবে প্রথম দিনে আমরা কয়েকটি হলের ৩-৪টি রুম সিলগালা করি। হলে ছাত্রত্বের বৈধতা না থাকায় তাদের রুমগুলো সিলগালা করে দেওয়া হয়। এই অভিযান চলমান থাকবে এবং বাকীগুলো হল প্রভোস্টের নেতৃত্বে সিলগালা করে দেওয়া হবে।

বুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি জামি উস সানি বলেন, সকালে রুম সিলগালা করার সময় আমি রুমেই ছিলাম। স্যাররা এসে সিলগালা করে দেন। আর আহসান উল্লাহ হলের ১২১ নম্বর কক্ষে ছাত্রলীগের অফিস ছিল। সেটাও সিলগালা করা হয়েছে। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি এখনও বৈধ ছাত্র, কিন্তু অনিয়মিত। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক সকল অনিয়মিত অছাত্রদের হল থেকে উচ্ছেদ চলছে। আমরা এই বিষয়ে প্রশাসনকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছি।

এর আগে বুয়েটের হলগুলো থেকে সিট দখলদারিত্ব উচ্ছেদ ও সাংগঠনিক ছাত্র সংগঠনগুলোর অফিস সিলগালা করার নির্দেশনা জারি করে কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. সাইদুর রহমান এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেন। এতে বলা হয়, অবৈধভাবে যারা হলের সিট দখল করে আছে, তাদেরকে সিট খালি করা, সাংগঠনিক ছাত্র সংগঠনগুলোর অফিস কক্ষ বন্ধ করে তা সিলগালা করার জন্য ছাত্রকল্যাণ পরিচালক ব্যবস্থা নেবেন। নির্দেশনায় আরো বলা হয়, কোনো শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে র‌্যাগিং বা ছাত্র নির্যাতনের অভিযোগ উঠলে ডিসিপ্লিনারি কমিটির মাধ্যমে তা দ্রুত বিচার করে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে সাম্প্রতিক কয়েকটি চুক্তি নিয়ে ফেসবুকে মন্তব্যের সূত্র ধরে শিবির সন্দেহে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গত ৬ অক্টোবর রাতে পিটিয়ে হত্যা করেন।

The Post Viewed By: 124 People

সম্পর্কিত পোস্ট