চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১২ অক্টোবর, ২০১৯ | ১০:১১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

৩১৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে কোরিয়া থেকে আসছে নতুন ইঞ্জিন

বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলে ট্রেন বহরে যুক্ত হতে চলেছে একশ নতুন ইঞ্জিন (লোকোমেটিভ)। দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ৩ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে জিটুজি (সরকার থেকে সরকার) পদ্ধতিতে কেনা হচ্ছে এসব রেল ইঞ্জিন। আগামী বছরের প্রথমার্ধে এসব ইঞ্জিন আসা শুরু হলে পূর্বাঞ্চলে ইঞ্জিন সংকট আর থাকবে না। জোড়াতালি দিয়ে ট্রেন চালানোর ভোগান্তি দূর হবে এবং যাত্রীসেবা ও পণ্য পরিবহনে গতি আসবে বলে জানিয়েছেন রেল কর্তৃপক্ষ। সূত্র : সময়ের আলো।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, বর্তমানে রেলওয়ের পূর্ব ও পশ্চিমাঞ্চলে মিটারগেজ ইঞ্জিন রয়েছে ১৭৮টি। এর মধ্যে ১৩৯টিই মেয়াদ উত্তীর্ণ, ২০ বছরের অধিক পুরনো। পূর্বাঞ্চলে প্রতিদিন ইঞ্জিনের চাহিদা রয়েছে ১১৫টির। কিন্তু পাওয়া যায় একশ ইঞ্জিন। তাও মেরামত করে জোড়াতালি দিয়ে যুক্ত
করা হয় বহরে। অধিকাংশ সময় এসব ইঞ্জিন মাঝপথে বিগড়ে যায়। এলোমেলো হয়ে যায় ট্রেনের শিডিউল। যাত্রীদের পোহাতে হয় চরম ভোগান্তি।

এ অবস্থা থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে উদ্যোগ নেওয়া হয় নতুন ইঞ্জিন সংগ্রহের। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় নতুন একশ মিটারগেজ ইঞ্জিন সরবরাহের। দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোমেট কোম্পানি সরবরাহ করবে এসব ইঞ্জিন। চুক্তি অনুযায়ী ২৪ মাসের মধ্যে সবকটি ইঞ্জিন সরবরাহ করা হবে। বর্তমানে নতুন ইঞ্জিন তৈরির কাজ দ্রুততার সঙ্গে চলছে এবং আগামী বছরের প্রথমার্ধের মধ্যে নতুন ইঞ্জিন চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছবে বলে আশা করা হচ্ছে।

রেলের এই প্রকল্পের পরিচালক হাসান মনসুর জানান, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে প্রথম ধাপে ৮৪১ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০টি ডিজেল ও ইলেকট্রিক লোকামেটিভ (ইঞ্জিন) কেনা হচ্ছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ২৯৮ কোটি টাকায় আরও ১০টি ইঞ্জিন আসবে। সবশেষে ২ হাজার কোটি টাকায় কেনা ৭০টি ইঞ্জিনের চালান এসে পৌঁছবে। এসব ইঞ্জিন ২২০০ অর্শ্বশক্তি ও ঘণ্টায় একশ কিলোমিটার গতিসম্পন্ন। নতুন ইঞ্জিনসমূহ বহরে যুক্ত হলে দীর্ঘদিনের ভোগান্তি ও সংকট থেকে মুক্ত হওয়া যাবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

পূর্বকোণ/রাশেদ

 

The Post Viewed By: 12998 People

সম্পর্কিত পোস্ট