চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৩৫ এএম

সারোয়ার আহমদ

পানগাঁও টার্মিনালের ব্যস্ততা বাড়াতে বিশেষ সিদ্ধান্ত

অগ্রাধিকার কোটায় বার্থিং সুবিধা চালু করছে বন্দর

পানগাঁও কন্টেইনার টার্মিনালের ব্যবহার বাড়াতে জাহাজ বার্থিং এর ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার সুবিধা কার্যকর করছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। চট্টগ্রাম-পানগাঁও নৌ রুটে ২০০ টিইইউএস (২০ ফুট কন্টেইনার সমান ১ টিইইউএস) এর অধিক পরিবাহিত আমদানি কন্টেইনারবাহী জাহাজকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চট্টগ্রাম বন্দরে বার্থিং দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। এই অগ্রাধিকার সুবিধা আগামী ১৫ অক্টোবর মঙ্গলবার থেকে কার্যকর করা হবে। এ বিষয়ে বন্দর ব্যবহারকারী ও সংশ্লিষ্ট সব সংস্থাকে চিঠি দিয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বন্দর ব্যবহারকারী ও সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তির শর্তাবলীতে জানানো হয়, শুধুমাত্র কন্টেইনারবাহী জাহাজ পানগাঁও কন্টেইনার টার্মিনাল অভিমুখী আমদানি পণ্যবাহী ২০০ টিইইউএস এর অধিক কন্টেইনার নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার কোটায় বার্থিং পাওয়ার জন্য যোগ্য হবে। তবে নির্ধারিত এই কোটায় ঘাটে কোন জাহাজ থাকলে সেই জাহাজ ঘাট ত্যাগ করার পর একই নিয়মে আরেকটি জাহাজ কোটায় বার্থ পাওয়ার জন্য বিবেচিত হবে। এছাড়া ২০০ টিইইউএস এর অধিক কন্টেইনারবাহী একাধিক জাহাজ এর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সংখ্যক কন্টেইনারধারী পানগাঁওগামী জাহাজকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে।
এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব ওমর ফারুক পূর্বকোণকে বলেন, ‘সরকার অনেক টাকা খরচ করে পানগাঁও টার্মিনাল নির্মান করেছে। ওই টার্মিনালের ব্যবহার বাড়ানোর জন্য ব্যবসায়ীদের পানগাঁও দিয়ে পণ্য নিতে বিশেষ অগ্রাধিকার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বন্দরের এক সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে ব্যবসায়ীরা পানগাঁও কন্টেইনার টার্মিনাল অভিমুখী আমদানি পণ্যবাহী ২০০ টিইইউএস এর অধিক কন্টেইনার নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার কোটায় বার্থিং পাওয়ার সুযোগ পাবেন’।

বন্দর ব্যবহারকারী ও বিজিএমইএ এর সাবেক পরিচালক কাজী মাহাবুবউদ্দিন জুয়েল পূর্বকোণকে বলেন, ‘পানগাঁও টার্মিনালের ব্যবহার বাড়াতে বন্দরের অগ্রাধিকার কোটায় বার্থিং দেয়াটা আসলেই সুসংবাদ। এই অগ্রাধিকারে সুবিধা পাবেন ঢাকার ব্যবসায়ীরা। তবে দেখার বিষয় হলো শর্ত অনুযায়ী এক জাহাজে ২০০ টিইইউএস এর অধিক কন্টেইনার পানগাঁও টার্মিনালে নিতে ব্যবসায়ীরা আগ্রহী কিনা। আর পানগাঁও টার্মিনালও সেই পরিমাণ কন্টেইনার হ্যান্ডেলিং এর জন্য সক্ষম বা প্রস্তুত কিনা।’

ঢাকা আইসিডি সম্পর্কে বাফার পরিচালক খায়রুল আলম সুজন পূর্বকোণকে ‘বলেন পানগাঁও বন্দর জনপ্রিয় হলে ঢাকা আইসিডির উপর চাপ কমে যাবে। আর রেলওয়ের ইঞ্জিন সংকটের কারণে ঢাকা আইসিডির পণ্য পরিবহনে যে সময় ব্যায় হতো তাও কমে আসবে।’

The Post Viewed By: 145 People

সম্পর্কিত পোস্ট