চট্টগ্রাম রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৮ অক্টোবর, ২০১৯ | ৫:৪০ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

‘আবরার হত্যার দায় বুয়েট কর্তৃপক্ষ এড়াতে পারে না’

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে শিক্ষক সমিতি। অতীতে বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থীদের ওপর ঘটে যাওয়া নির্যাতন ও র‌্যাগিংয়ের ঘটনায় দোষীদের চিহ্নিতকরণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিষ্ক্রিয়তার ফলে ক্রমাগত আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটেছে দাবি করে বুয়েট শিক্ষকরা বলেছেন, এই ফলশ্রুতিতে আবরার ফাহাদের নির্মম হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনা সংঘটিত হয়েছে, যার দায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনোভাবেই এড়াতে পারে না। সংগঠনের সভাপতি ড. এ কে এম মাসুদ ও সাধারণ সম্পাদক ড. মো. মোস্তফা আলী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানানো হয়।

বুয়েট শিক্ষকদের ভাষ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে কোনো শিক্ষার্থী নির্যাতনের স্বীকার হবে এবং মৃত্যুবরণ করবে তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন ও শিক্ষার্থীদের আবাসিক হলসহ গোটা ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব কর্তৃপক্ষের। আবরার হত্যার ঘটনা প্রমাণ করছে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত সকলকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে চিহ্নিত করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যনির্বাহী পরিষদ ও সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের কাছে জোর দাবি জানিয়েছে বুয়েট শিক্ষক সমিতি।

বুয়েটের সাধারণ ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শেরেবাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে রবিবার (৬ অক্টোবর) মধ্যরাতে অচেতন অবস্থায় আবরারকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। সোমবার (৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

 

 

পূর্বকোণ/এম

The Post Viewed By: 78 People

সম্পর্কিত পোস্ট