চট্টগ্রাম বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:১৫ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক হ ঢাকা অফিস

হঠাৎ ছাত্রদলের কাউন্সিল মির্জা আব্বাসের বাসায়

অনেকটা আকস্মিকভাবেই গতরাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের বাসায় ছাত্রদলের কাউন্সিল অধিবেশন বসে। জানা গেছে, গতকাল বুধবার রাত আট থেকে শুরু হয় এ কাউন্সিল। কাউন্সিলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা জানান, আদালতের স্থগিতাদেশের সঙ্গে এ কাউন্সিল করতে কোনও সমস্যা নেই। ছাত্রদলের নেতারা জানান, গতকাল বুধবার বিকেলে ছাত্রদলের কাউন্সিলর, প্রার্থী ও নেতা-কর্মীরা বিএনপির নয়াপল্টন অফিসে লন্ডন প্রবাসী বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে স্কাইপের মাধ্যমে বৈঠক করেন। সে বৈঠক থেকেই মির্জা আব্বাসের শাহজাহানপুরের বাসায় কাউন্সিল করার সিদ্ধান্ত হয়। ছাত্রদলের সাবেক নেতা ও বর্তমানে বিএনপির বিভিন্ন পদে থাকা নেতাদের মধ্যে বিকেলের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, শামসুজ্জামান দুদু, রুহুল কবির রিজভী, ফজলুল হক মিলন, খায়রুল কবির খোকন, শহিদউদ্দিন চৌধুরী, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, শফিউল বারী বাবু প্রমুখ। তারা সবাই ছাত্রদলের কাউন্সিল পরিচালনার বিভিন্ন দায়িত্বে আছেন। ছাত্রদলের সাবেক নেতা ও বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘সবাইকে আমরা ডেকেছি। রাত ৮টায় কাউন্সিল প্রক্রিয়া

হবে। কাউন্সিলরদের সঙ্গে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নিয়ে ভোটের মাধ্যমেই কমিটি হবে।’ আদালতের স্থগিতাদেশ প্রশ্নে বলেন, ‘আমরা রকম কোনো সাংঘর্ষিক দেখি না। আমাদের আইনজীবীরা তাঁদের বক্তব্য আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) আদালতে উপস্থাপন করবেন।’ কাউন্সিল করতে কোনো সমস্যা বলে মনে করছেন না তিনি। কাউন্সিলর ও প্রার্থীদের কয়েকজন জানান, প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমেই কাউন্সিল হবে বলে তাঁরা জানেন।

ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিল হওয়ার কথা ছিল ১৪ সেপ্টেম্বর। তবে ১২ সেপ্টেম্বর সাবেক কমিটির এক নেতার করা মামলায় এ কাউন্সিলের ওপর আদালত স্থগিতাদেশ দেন এবং একই সঙ্গে বিএনপির নেতাদের জড়িত থাকার বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেন। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের প্রক্রিয়ায় এবার সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদে সরাসরি ভোট হবে। সারা দেশের ৫৮০ জন কাউন্সিলর এ দুই পদের জন্য ভোট দেবেন। সভাপতি পদে লড়ছেন নয়জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ১৯ জন প্রার্থী।

The Post Viewed By: 385 People

সম্পর্কিত পোস্ট