চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০২ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:১৪ অপরাহ্ণ

ইসি ভবনে আগুন: ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

নির্বাচন কমিশন ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আগুন লাগার কারণ ও উৎস নির্ধারণ, আগুন লাগায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের আগুন যাতে না লাগে, সে বিষয়ে সুপারিশ করবে এই কমিটি। আজ সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে ইসির উপসচিব (সাধারণ সেবা) রাশেদুল ইসলাম সই করা এক নথি থেকে এ তথ্য জানা যায়।

আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে কমিটিকে। তদন্ত কমিটির সভাপতি করা হয়েছে ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমানকে এবং সদস্য সচিব করা হয়েছে সহকারী সচিব (সেবা-২) খ ম আরিফুল ইসলামকে। কমিটির অন্য চার সদস্য হলেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, গণপূর্তের ই/এম বিভাগ-৮ এর নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল হালিম, গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী শাহ ইয়ামিন-উল-ইসলাম ও ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের প্রতিনিধি (পরিচালকের নিচে নয়)।

নথিতে বলা হয়, ইসি সচিবালয়ের বেসমেন্ট-১-এ রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) আনুমানিক রাত ১০টা ৫০ মিনিটে হঠাৎ আগুন লাগে। পরবর্তীতে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট কাজ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন লাগার কারণ, উৎস, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ ও ভবিষ্যতে এ ধরনের আগুন যাতে না ঘটে সে লক্ষ্যে সুপারিশ প্রণয়নসহ আগুনের ঘটনায় এই তদন্ত কমিটি গঠন করা যেতে পারে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের তথ্য মতে, তারা ১১টা ৬ মিনিটে নির্বাচন কমিশন ভবনে আগুন লাগার তথ্য পান। ১১টা ১০ মিনিটে ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভাতে শুরু করেন। এ সময় তাদের ১২টি ইউনিটে ১০০ জন কর্মী কাজ করেন। ১২টা ১৮ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে এবং সাড়ে ১২টায় তারা আগুন নিভিয়ে ফেলেন। ঘটনার পর ইসি সচিব মো. আলমগীর জানান, ভবনটিতে ৪ হাজার ৫০০ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) রয়েছে। বেসমেন্টেও কিছু ইভিএম ছিল। আগুন লাগার ফলে সেখানে খাকা কিছু ইভিএমের ক্ষতি হয়েছে। তবে বেসমেন্টে কত ইভিএম মেশিন ছিল, তা বলতে পারেননি তিনি।

সেখানে থাকা কিছু কাগজপত্রেরও ক্ষতি হয়েছে বলে ইসির কয়েকজন নিরাপত্তাকর্মী জানান।

 

 

 

পূর্বকোণ/ময়মী

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 355 People

সম্পর্কিত পোস্ট