চট্টগ্রাম শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সর্বশেষ:

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১০:২৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

এসাইকুডায় এন্ট্রি হবে ইপিজেডের সব কাঁচামাল

রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলের (ইপিজেড) কিছু প্রতিষ্ঠান এসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেমের পরিবর্তে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে হাতে লেখা বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে কাঁচামাল সংগ্রহ করছে। ফলে অডিটে এসব কাঁচামালের হিসাব অনেক ক্ষেত্রে  দেখানো হচ্ছে না। ম্যানুয়ালি বিল অব এন্ট্রির কারণে প্রতিষ্ঠানের সময় বেশি লাগছে, পাশাপাশি রাজস্ব ফাঁকিও হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ইপিজেডের সব কাঁচামাল এসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেমে এন্ট্রি দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে।

এ বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ এবং নির্দেশনা চেয়ে ২৭ আগস্ট এনবিআর চেয়ারম্যানকে দেয়া চিঠিতে ঢাকা কাস্টমস বন্ড কমিশনার এস এম হুমায়ুন কবীর জানিয়েছেন, ইপিজেডে সরাসরি আমদানিকারকের পাশাপাশি বিপুল প্রচ্ছন্ন রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সরাসরি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট শুল্ক  স্টেশনে কার্যক্রম সম্পাদন করলেও প্রচ্ছন্ন রপ্তানিকারকরা ইপিজেডের গেটে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বিল অব এন্ট্রি নিয়ে শুল্ক দেয়। এতে অনেক ক্ষেত্রেই শুল্কায়ন দেরি হওয়ার পাশাপাশি সার্বিক কার্যক্রমে নানা অসংগতি ও অস্বচ্ছতার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

তিনি বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশের উন্নতি, শুল্কায়ন কার্যক্রম আধুনিকায়ন ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার স্বার্থে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে  দেশের সব ইপিজেড এসাইকুডা ওয়ার্ল্ডের আওতায় আনার প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়ার অনুরোধ করেন।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের আটটি ইপিজেড থেকে বছরে প্রায় ৬৪ হাজার কোটি টাকার পণ্য রপ্তানি হয়। এসব ইপিজেডে ৫২৭ প্রতিষ্ঠানের বন্ড লাইসেন্স রয়েছে। এর মধ্যে ৪৫৬টি সচল প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কিছু প্রতিষ্ঠান ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে হাতে লেখা বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে কাঁচামাল সংগ্রহ করছে।

সূত্র: দেশ রূপান্তর

 

 

পূর্বকোণ/আফছার

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 505 People

সম্পর্কিত পোস্ট