চট্টগ্রাম শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

২৬ অক্টোবর, ২০২২ | ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নতুন ঘরে উঠা হলো না কুমিল্লার প্রবাসী নেজামের, একই পরিবারের তিনজন নিহত

মালয়েশিয়ায় রক্তঘামে জমানো টাকায় দেশে ফিরে একটি বাড়ি নির্মাণের স্বপ্ন ছিল কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের নেজাম উদ্দিনের। হয়েছেও তাই, মাত্র এক মাস আগেই দেশে ফিরে হেসাখাল ইউনিয়নের খামারপাড়া গ্রামে নিজ জায়গায় তৈরি করেছেন একতলার নতুন এই বাড়িটি। নির্মাণ কাজও প্রায় শেষ, আগামী ৩০ অক্টোবর টিনের বাড়িটি ছেড়ে নতুন পাকাঘরে উঠার কথা ছিল তাদের। কিন্তু নতুন ঘরে ঘুমানোর সেই স্বপ্ন কেড়ে নিলো ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং।

ঝড়ের মধ্যে স্ত্রী শারমিন আক্তার সাথী ও পাঁচ বছরের শিশুসন্তান নুসরাত আক্তার লিজাকে একসাথে নিয়ে টিনের বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন নেজাম। এর মধ্যে ঘরের পাশে পুকুর পাড়ে থাকা একটি বিশাল রেইন ট্রি গাছ ভেঙে পড়ে তিনজনের বুকের উপর। পরে স্থানীয় লোকজন করাত দিয়ে গাছ কেটে তাদের তিনজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু চিকিৎসকরা তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

 

গত সোমবার (২৪ অক্টোবর) রাত ১০টায় ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং’র প্রভাবে হেসাখাল ইউনিয়নের খামারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নেজাম উদ্দিনের ভাই জামাল উদ্দিন জানান, মাত্র এক মাস আগেই মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফিরেন নেজাম উদ্দিন। স্ত্রী কন্যাকে নতুন ঘরে তুলে দিয়ে আগামী মাসেই আবার ফিরে যাবার কথা ছিলো তার। সোমবার রাতে ঝড় শুরু হওয়ায় নাজিম দ্রুত বাড়ি ফিরে স্ত্রী কন্যার সাথে ঘুমিয়েছিলেন। আচমকা ঘরের পাশের বিশাল গাছটি উপড়ে পরে চাপা দেয় ঘরটিকে। এতে তারা তিনজনই মারা যান।

হেসাখাল ইউপি চেয়ারম্যান ইকবার বাহার মজুমদার জানান, ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের আঘাতে মর্মান্তিক মৃত্যুর শিকার স্বচ্ছল এই পরিবারটির প্রতি সমবেদনা জানানো ছাড়া কিছুই করার নেই।

 

তিনি জানান, ঝড়ে তিনজনের মৃত্যু ছাড়াও সিত্রাংয়ের প্রভাবে নাঙ্গলকোট উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় গাছ উপড়ে ক্ষতির শিকার হয়েছে অনেক ঘরবাড়ি। রাত সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত কুমিল্লা অতিক্রম করা কালে এই ঘূর্ণিঝড় ক্ষয়ক্ষতি করেছে অসংখ্য ঘরবাড়ি ও স্থাপনার।

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার হেসাখাল এলাকায় ঝড়ে গাছ পড়ে একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যুর ঘটনায় ওই এলাকায় শোকের মাতম বইছে। নিহতদের স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে ওঠেছে সেখানকার পরিবেশ।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) সকালে হেসাখাল গ্রামের খামার পাড়ায় গিয়ে চোখে পড়ে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের। একই পরিবারের তিন সদস্যের মৃত্যুর ঘটনায় শোকে বিহ্বল স্বজনেরা বারবার মোর্ছা যাচ্ছেন। তাদের সান্ত্বনা দিচ্ছেন প্রতিবেশীরা। আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকেও মানুষজন ছুটে আসছেন নিজাম উদ্দিনের বাড়িতে। স্বজনদের কান্নায় তাদের চোখও ছলছল করে ওঠে।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট