চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১৮ অক্টোবর, ২০২২ | ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

চার শতাধিক নাটকে অভিনয় করেছেন মাসুম আজিজ

“জন্মিলে মরিতে হবে” মানব জন্মের এটাই অমোঘ নীতি। আর সেই অমোঘ নীতিকে মেনে নিয়ে আজ ১৭ অক্টোবর সবাইকে ছেড়ে পরপারে পাড়ি দিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত অভিনয়শিল্পী, নাট্যকার মাসুম আজিজ (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর মৃত্যুর খবরটি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন তার ছেলে উৎস জামান ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ।

বরেণ্য অভিনেতা মাসুম আজিজ ১৯৫২ সালে পাবনা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একাধারে একজন অভিনেতা এবং নাট্য নির্মাতা। মঞ্চ, টিভি নাটক ও সিনেমা সবখানেই অভিনয়ের দ্যুতি ছড়িয়েছেন মাসুম আজিজ। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে তিনি থিয়েটারে কাজের মাধ্যমে অভিনয়ে আত্মপ্রকাশ করেন। এরপর ১৯৮৫ সালে তিনি প্রথম টিভি নাটকে অভিনয় করেন। দীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি ৪০০ এর অধিক সংখ্যক নাটকে অভিনয় করেন।

হুমায়ূন আহমেদের বিখ্যাত ধারাবাহিক নাটক “উড়ে যায় বকপক্ষী” তে অভিনয়ের জন্য তিনি একবিংশ শতাব্দীর সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য আরো কয়েকটি নাটক হলো- ‘সাকিন সারিসুরি’, ‘তিন গ্যাদা’, ‘দুই দুকুনে চার’ ইত্যাদি।

বহু সিনেমায়ও অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন মাসুম আজিজ। তার অভিনীত চলচ্চিত্রের মধ্যে ‘ঘানি’,’গহীনে শব্দ’,’গেরিলা’, ‘ইন্দুবালা’, ‘বস্তির ছেলে কোটিপতি’, ‘গাড়িওয়ালা’,’লালচর’ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। ‘ঘানি’ সিনেমায় অভিনয় করে ২০০৬ সালে তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্রের অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন।

শিল্পকলার অভিনয় শাখায় অবদানের জন্য নন্দিত অভিনেতা মাসুম আজিজ ২০২২ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত একুশে পদক লাভ করেন। এছাড়া তিনি মেরিল প্রথম আলো পুরস্কারেও ভূষিত হন।

মঞ্চ ও টিভি নাটকের জ্যেষ্ঠ অভিনয়শিল্পী মাসুম আজিজ ক্যানসারের পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে হার্টের সমস্যায়ও ভুগছিলেন। ২০১৭ সালে তাঁর হার্টে চারটি ব্লক ধরা পড়লে অস্ত্রোপচার করা হয়। ২০২২ সালের শুরুতে তিনি ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। ক্যান্সারের চিকিৎসা চললেও অক্টোবর মাসের শুরু থেকে বেশি অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় গত ৮ অক্টোবর থেকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন এই অভিনেতা। এ সময় ক্যানসারের কেমো থেরাপি দেওয়ার পর অভিনেতার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।

এছাড়া ফুসফুসে ব্যাকটেরিয়াও সংক্রমিত হয়। এসব কারণে ওষুধ কাজ করছিলো না। শারীরিক অবস্থার বেশি অবনতি হওয়ায় গত ১৩ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে ‘লাইফ সাপোর্টে’ নেওয়া হয়। চিকিৎসকেরা চেষ্টা করছিলেন, তবে সব চেষ্টা ব্যর্থ করে আজ সোমবার বেলা ২টা ৪৫ মিনিটে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

বিশিষ্ট অভিনেতা মাসুম আজিজ তার অভিনয় জীবনে বেশিরভাগ সময় পোড় খাওয়া সাধারণ মানুষের চরিত্রে অভিনয় করে সকলের হৃদয় স্পর্শ করেছেন। মৃত্যুর পরেও তার অভিনয় দিয়ে একজন সাধারণ মানুষ হিসেবেই তিনি রয়ে যাবেন সকলের অন্তরের অন্তঃস্থলে।

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট