চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৭ অক্টোবর, ২০২২ | ১:৫৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

জ্বালানি তেলের দাম কমার সম্ভাবনা নেই : প্রতিমন্ত্রী

বৈশ্বিক কারণে জ্বালানি পরিস্থিতি নিয়ে আশাবাদী হওয়ার সুযোগ কম। তাই আপাতত জ্বালানি তেলের দাম কমার কোনো সম্ভাবনা নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

শুক্রবার (৭ অক্টোবর) সকাল সোয়া ১১টায় রাজধানীতে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের ব্রিফ্রিং করেন তিনি।

এর আগে গত বুধবার (৫ অক্টোবর) ডিজেলের দাম কমাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনায় চিঠি দেয় তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)।

সংগঠনটির দাবি, দ্রুত ইতিবাচক সিদ্ধান্ত না এলে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা হারাবে খাতটি, যার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে দেশের অর্থনীতিতে।

এছাড়া অর্থনীতিবিদরাও বলে আসছিলেন, রপ্তানিখাতসহ দেশের অর্থনীতিতে স্বস্তি ফেরাতে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয় করার সময় এসেছে।
তবে জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীর এই বক্তব্যে এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, আপাতত জ্বালানি তেলের দাম কমানোর কথা ভাবছে না সরকার।

ব্রিফ্রিংকালে দেশে চলমান লোডশেডিংয়ের বিষয়ে নসরুল হামিদ বলেন, লোডশেডিং আগের চেয়ে কমেছে; তবে এখনও দিনে ৫০০-৭০০ মেগাওয়াট হচ্ছে।

বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনার আরও আধুনিকায়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংকের দীর্ঘসূত্রতা ও কোভিড পরিস্থিতির কারণে পিছিয়ে যায় বিদ্যুতের সঞ্চালন ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়নের অনেক কাজ। এখনও বিষয়টিতে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

এর আগে গত ২৮ আগস্ট ডিজেল, অকটেন, পেট্রোল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ৫ টাকা কমানো হয়। নতুন ঘোষণা অনুযায়ী, বর্তমানে প্রতি লিটার ডিজেল ও কেরোসিন ১০৯ টাকা, অকটেন ১৩৫ টাকা ও পেট্রোল ১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আগস্ট রাতে হঠাৎ ঘোষণায় বাড়ে জ্বালানি তেলের দাম। লিটারপ্রতি সর্বোচ্চ ৪৬ টাকা দাম বাড়ানোর প্রভাব পড়ে বাজারে। মুহূর্তেই হু হু করে বাড়তে থাকে সব পণ্যের দাম। জীবনযাত্রার ব্যয়বৃদ্ধি তথা বাজারে জিনিসপত্রের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতির চাপে সাধারণ মানুষের দিশেহারা অবস্থা। এতে সারা দেশে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।

পূর্বকোণ/আর/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট