চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

৭ অক্টোবর, ২০২২ | ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ

বিজ্ঞপ্তি

হালিশহর দরবারে আজম কমপ্লেক্সে নুরানী মাহফিল শুরু

পবিত্র ঈদে মিলাদুননবী (সা.) চট্টগ্রামের বড়পুল এলাকার দরবারে আজম কমপ্লেক্সে তিনদিন ব্যাপী নুরানী মাহফিল শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) থেকে শুরু হওয়া এই নূরানী মাহফিল চলবে আগামী শনিবার পর্যন্ত।

মাহফিলের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনে মধ্যমনি হিসাবে ত্বকরীর পেশ করেন দরবারে আযম কমপ্লেক্সের পরিচালক মুহাম্মদ ইসমাঈল হোসাইন আল ক্বাদেরী (মঃজিঃআঃ)।

তিনি বলেন, হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর আগমন উপলক্ষে আল্লাহর শুকরিয়ার্থে শরীয়ত সম্মতভাবে খুশি উদযাপন করাই হলো ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। নবী রাসূল প্রেরণের ক্রমধারায় শেষ নবী হযরত মোহাম্মদ মোস্তফা (সা.) এর আর্বিভাব ছিল একটি বিস্ময়কর ব্যাপার। হযরত ঈসা (আ.)-এর পর দীর্ঘদিন পর্যন্ত এ ধরায় নবী রাসূলের আগমন ঘটেনি। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বের সর্বত্রই অত্যাচার-অনাচার, কুসংস্কার, নিষ্ঠুরতা ও সামাজিক দ্বন্দ্ব-সংঘাতের মধ্যে নিমজ্জিত হয়ে পড়ে। এহেন চরমতম মানবিক অসাম্য ও মানবাধিকার বৈষম্যের ঘোর অন্ধকার যুগে আবির্ভূত হলেন সাইয়্যেদুল মোরছালিন খাতামুন্নাবীয়্যিন রাহমাতাল্লি আলামিন মানবতার মুক্তির দিশারী হযরত মোহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। তারপর থেকে পৃথিবীর সমস্ত জমিনই মসজিদে পরিণত হল। যার ফলে আমরা এখন মসজিদে, ঘরে, যানবাহনে পথে-ঘাটে সবখানেই নামাজ পড়তে পারছি।

নবী করীম (স.) এর আগমনে আকাশে-বাতাসে ধ্বনিত হল আহলান ছাহলান, মারহাবান-মারহাবান! হযরত মা আমেনা বলেন তাঁর জন্মলগ্নের পর মুহূর্তেই একটা নূর প্রকাশিত হল যার আলোতে পূর্ব ও পশ্চিম প্রান্তের সবকিছু আলোকিত হয় এবং যার আলোতে সিরিয়ার শাহী মহল মা আমেনা দেখতে পান। রাসূলে পাক (স.) দুনিয়াতে তশরিফ আনার সাথে সাথে ক্বাবা শরীফ মাকামে ইব্রাহীমের দিকে ঝুঁকে পড়ে রাসূলেপাক (স.) এর বেলাদাতের তাজিম করেছিল।

মাহফিলের প্রথম দিনে আলোচনা করেন আঞ্জুমানে আল সিস্তি গরীবে নেওয়াজ সুন্নী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাওলানা আবু সালেহ আবেদী, হাটহাজারীর রাজাখান পাড়া জামে মসজিদের খতিব নুরুর আলম ছাবেরী, ব্রাহ্মণ পাড়ার সুবিল মাদ্রাসার সহ-সুপার মাওলানা আব্দুল মতিন, মধ্যম হালিমহর চান্দারপাড়া মসজিদের খতিব মাওলানা রবিউল করীম, ইসলামী গবেষক ডা. মুহাম্মদ হোসেন সরকার, মাওলানা সেলিম রেজা কাদেরী প্রমূখ।

আয়োজকরা জানান, আগামী দিনের মাহফিলে আলোচনায় অংশ নেবেন ঢাকার প্রাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ইউসুফ জিলানী, শাহ আমানত সোসাইটির খতিব মাওলানা ফাইজুল কবির বদরী, শহীদুল্লাহ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মোস্তাফিজুল হক আনোয়ারী, নালা পাড়া জামে মসজিদের খতিব মুফতি আব্দুস সাত্তার, বায়তুস সালাত জামে মসজিদের খতিব মাওলানা ইয়ার মোহাম্মদ রিজভী, দরবারে আজম কমপ্লেক্সের মাওলানা উমর ফারুক মিয়াজী।

আগামী শনিবার সমাপনী দিনের নূরানী মাহফিলের আলোচনা সভায় দেশের খ্যাতিমান ইসলামী চিন্তাবিদরা অংশ নেবেন।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট