চট্টগ্রাম রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ১০:৩৭ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

জট খুলতে পারে জ্বালানি-জনশক্তি রপ্তানি ও আকাশ পথের

দুই দিনের সফরে আগামী ১৪ অক্টোবর ঢাকায় আসছেন দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশ ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়া। সুলতানের সফরে জ্বালানি খাতে অগ্রাধিকার, জনশক্তি রপ্তানি, আকাশ পথে সরাসরি যোগাযোগ, প্রতিরক্ষাসহ আরও দু’একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সইয়ের প্রস্তুতি চলছে। এর মধ্যে একটি নবায়ন হবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে জানান, ২০১৯ সালের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রুনাই সফর করেন। তার ফিরতি সফর হিসেবে পরের বছর ব্রুনাইয়ের সুলতানের ঢাকায় আসার কথা ছিল। কিন্তু করোনা মহামারিসহ বিভিন্ন ঝামেলার কারণে সফরটি হয়নি। নতুন করে এখন সফর চূড়ান্ত হয়েছে। আগামী ১৪-১৬ অক্টোবর ঢাকায় সফর করবেন সুলতান।

 

মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, সুলতানের সফরে কয়েকটি সমঝোতা ও চুক্তি নিয়ে আলোচনা চলছে। ব্রুনাইয়ের সঙ্গে জ্বালানি, শ্রমবাজার, সরাসরি বিমান চলাচল, প্রতিরক্ষা এবং নাবিকদের সনদের স্বীকৃতি বিষয়ক সমঝোতা সই হতে পারে। এগুলো নিয়ে কাজ চলছে। আশা করা হচ্ছে সুলতানের সফরে এগুলো নিষ্পত্তি করা সম্ভব হবে। এছাড়া দ্বৈত কর পরিহার এবং বিনিয়োগ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কাজ চলছে।

এ কর্মকর্তা বলেন, সুলতানের সফরে রোহিঙ্গা ইস্যুটা গুরত্বপূর্ণ। কেননা, ব্রুনাই আসিয়ানের গুরত্বপূর্ণ সদস্য। সুলতানের সফরে বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে আসিয়ানের জোরালো ভূমিকা চাইবে। সবচেয়ে বড় বিষয় যেটা, এ সফরে বর্তমান মিয়ানমার পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশ যেসব সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে, সেটা তুলে ধরার সুযোগ পাবে।

 

জানা যায়, সুলতানের ঢাকা সফরে রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ হতে পারে। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসবেন। এছাড়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ও সরকারের গুরত্বপূর্ণ মন্ত্রীরা সুলতানের সাক্ষাৎ পেতে পারেন।

সুলতানের সফর সম্পর্কে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জ্যৈষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, সুলতানের সফরে আমরা চাইবো কয়েকটা গুরত্বপূর্ণ বিষয়ে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই করতে। এর মধ্যে শ্রমবাজার সংক্রান্ত একটা সমঝোতা, সরাসরি বিমান চলাচলে চুক্তি, জ্বালানি নিয়ে আগে একটা সমঝোতা আছে; সেটার নবায়ন হতে পারে। এছাড়া প্রতিরক্ষা সহযোগিতা নিয়ে একটা এমওইউ হতে পারে। এই মুহূর্তে নিশ্চিত করে বলা যাবে না মোট কয়টা চুক্তি হবে। এটা নির্ভর করবে সুলতানের ওপর।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট