চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ২:১৭ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

আমি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার, রায়ের পর জিকে শামীম

নিজেকে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার বলে মন্তব্য করেছেন অস্ত্র আইনে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত বিতর্কিত ঠিকাদার এসএম গোলাম কিবরিয়া ওরফে জিকে শামীম।

রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) অস্ত্র মামলার রায় ঘোষণার পর আদালত থেকে ফেরার পথে তিনি এই মন্তব্য করেন।

এ সময় জিকে শামীম বলেন, ‘আমার প্রতি অন্যায় করা হয়েছে। আমি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার এবং এটি আমার বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র।’

 

রবিবার দুপুরে ঢাকার বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক শেখ ছামিদুল ইসলামের আদালত জি কে শামীম ও তার ৭ দেহরক্ষীকে অস্ত্র আইনের মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী কৌঁসুলি মো. সালাউদ্দিন হাওলাদার সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

 

অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. শাহীনুর ইসলাম এ রায়ে সংক্ষুব্ধ হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আসামিরা ন্যায়বিচার পায়নি।’

যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত অন্য আসামিরা হলেন—শামীমের দেহরক্ষী দেলোয়ার হোসেন, মো. মুরাদ হোসেন, মো. জাহিদুল ইসলাম, মো. শহীদুল ইসলাম, মো. কামাল হোসেন, মো. সামসাদ হোসেন ও মো. আমিনুল ইসলাম। রায়ের পর তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, ক্যাসিনোবিরোধী ‘শুদ্ধি’ অভিযান চলাকালে ২০১৯ সালের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশান কার্যালয় থেকে সাত দেহরক্ষীসহ শামীমকে আটক করা হয়। ওই বছরের ২৭ অক্টোবর র‌্যাবের উপপরিদর্শক ও এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শেখর চন্দ্র মল্লিক আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। তাতে উল্লেখ করা হয়, ‘তারা অস্ত্রের লাইসেন্সের শর্ত ভঙ্গ করে প্রকাশ্যে অস্ত্রশস্ত্র বহন ও প্রদর্শন করেছেন। এর মাধ্যমে জনমনে ভীতি সৃষ্টি করে বিভিন্ন বড় বড় টেন্ডারবাজি, মাদক ব্যবসাসহ স্থানীয় বাস টার্মিনাল ও গরুর হাট-বাজারে চাঁদাবাজি করে আসছিলেন।’

পরে ২০২০ সালের ২৮ জানুয়ারি আদালত অস্ত্র মামলায় অভিযোগ গঠনের আদেশ দিয়েছিলেন। শুনানিকালে মামলার বাদীসহ রাষ্ট্রপক্ষের মোট ১০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। গত ২৮ আগস্ট ট্রাইব্যুনাল এই মামলার রায় ঘোষণার তারিখ নির্ধারণ করেছিলেন।

 

পূর্বকোণ/এএস/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট