চট্টগ্রাম সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ১১:১৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মঞ্চে নেই বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি, পণ্ড বিদায় অনুষ্ঠান

নাটোরের গুরুদাসপুর বিলচলন শহীদ সামসুজ্জোহা সরকারি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের মঞ্চে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি না থাকায় আয়োজন পণ্ড করে দিয়েছেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। আজ বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে কলেজ মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

কলেজটির কয়েকজন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কলেজটির প্রায় ৫০০ শিক্ষার্থীকে বিদায় সংবর্ধনা দিতে কলেজের মাঠে মঞ্চ তৈরি করে অতিথি এবং সামনে শামিয়ানা টাঙিয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য চেয়ার রাখা হয়। শিক্ষার্থীরা তাঁদের আসনও গ্রহণ করেন। অতিথিদের বরণ করতে সব ধরনের প্রস্তুতিও নেয় কলেজ কর্তৃপক্ষ। কিন্তু অনুষ্ঠান শুরুর আধা ঘণ্টা আগে প্রধান অতিথি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য মো. আবদুল কুদ্দুস অনুষ্ঠানস্থলে এসে দেখেন মঞ্চে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি নেই। মুহূর্তেই অনুষ্ঠান স্থলত্যাগ করেন তিনি। এ ঘটনায় কলেজ ও উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে অনুষ্ঠান পণ্ড করে দেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে কয়েকজন শিক্ষকও লাঞ্ছিত হয়েছেন।

আজ দুপুরে এ ঘটনায় নিজ কার্যালয়ের সংবাদ সম্মেলন করে কলেজটির অধ্যক্ষ অধ্যাপক একরামুল হক বলেন, বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ঘিরে অনেক ব্যস্ততার মধ্যে সময় কেটেছে তাঁর। অনুষ্ঠান স্থলের দায়িত্বে থাকা শিক্ষকেরা বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি টাঙাতে ভুলে গিয়েছিলেন। এটা দুঃখজনক। তবে সময় করে আবারও ত্রুটিমুক্ত অনুষ্ঠানের আয়োজন করবেন।

অনুষ্ঠানে কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও নাটোরের জেলা প্রশাসক শামীম আহম্মেদ ও পুলিশ সুপার সাইফুর রহমানকে অতিথি করা হয়েছিল। তাঁরা সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত হননি। এদিকে সংবর্ধনা মঞ্চে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার না করার ঘটনা, সংসদ সদস্যের অনুষ্ঠান বর্জন করার প্রতিবাদে এবং অধ্যক্ষের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ করেছে কলেজ, পৌর ও উপজেলা ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের এমন কার্যক্রমে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কলেজ ক্যাম্পাস। ভয়ে ছাত্রছাত্রীরা দ্রুত কলেজ ত্যাগ করেন। শিক্ষকেরাও উৎকণ্ঠায় পড়েন পরিস্থিতি সামাল দিতে। এ বিষয়ে কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

পূর্বকোণ/মামুন/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট