চট্টগ্রাম সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৬ আগস্ট, ২০২২ | ৩:৪০ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

ব্যবসায়ীরা বেশি সুযোগ নিচ্ছে, তাদের নীতিমালায় আনতে পারিনি : শিল্পমন্ত্রী

দেশের ব্যবসায়ীদের একটি নীতিমালায় আনতে না পারার ব্যর্থতা স্বীকার করে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, নীতিমালায় আনতে না পারায় দ্রব্যমূল্য বেড়েছে। আমাদের দেশের ব্যবসায়ীরা একটু বেশি সুযোগ নিচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি সার্বিকভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণের জন্য।

শুক্রবার (২৬ আগস্ট) সকালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় ইউরিয়া সার বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশনের (বিসিআইসি) সার কারখানাগুলোর মাধ্যমে উৎপাদন এবং বিদেশ থেকে আমদানি করে থাকে। বর্তমানে বাংলাদেশে ইউরিয়া সারের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে। দেশে বর্তমানে বছরে কমপক্ষে ২৫ লাখ মেট্রিক টন ইউরিয়া সারের চাহিদা রয়েছে। উক্ত সারের ন্যূনতম ৬০-৭০ শতাংশ বিদেশ থেকে আমদানি করে চাহিদা মেটাতে হয়। আমদানিকৃত সার দেশের বিভিন্ন জেলার বিএডিসির ২৫টি বাফার গুদামের মাধ্যমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ডিলারদের মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

 

তিনি আরও বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয় কর্তৃক সার সংরক্ষণ ও বিতরণ সুবিধার জন্য দেশের বিভিন্ন জেলায় দুটি পৃথক প্রকল্পের মাধ্যমে মোট ৪৭টি বাফার গোডাউন নির্মাণ করা হচ্ছে। সবগুলো বাফার গোডাউন নির্মাণ সম্পন্ন হলে প্রতিটিতে ১০ হাজার মেট্রিক টন করে মোট প্রায় ৫ লাখ মেট্রিক টন সার মজুত রাখা সম্ভব হবে বলে আশা করি। এ প্রকল্পে গোপালগঞ্জ সদরে নির্মাণ কাজের ভৌত অগ্রগতি প্রায় শতকরা ৪০ ভাগ। প্রায় ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন প্রকল্পটি দ্রুত শেষ করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- শিল্পমন্ত্রীর সহধর্মিণী নাদিরা মাহমুদ, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা, বিসিআইসি’র চেয়ারম্যান শাহ্‌ মো. ইমদাদুল হক, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নূরুল আলম, জনেন্দ্রনাথ সরকার, এসএম আলম, যুগ্মসচিব মো. আব্দুল ওয়াহেদ প্রমুখ।

 

পূর্বকোণ/এএস/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট