চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

৫ আগস্ট, ২০২২ | ৭:২১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাজারে সিন্নি বিতরণকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১২

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে একটি মাজারে সিন্নি বিতরণ অনুষ্ঠানে মেয়েদের ব্যাগ চুরিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় নারীসহ কমপক্ষে ১২ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের হাজী শাহ শরীফ জিন্দানী রহ: মাজার চত্বরে এই ঘটনা ঘটে। আহতদের তাড়াশ ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

বিষয়টি তাড়াশ থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে থানা পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, তাড়াশ সদরের ফরিদুল ইসলামের শিশু ছেলে আইভীর বয়স ছয় মাস। তার মুখে প্রথম ভাত দেওয়ার জন্য নওগাঁ ইউনিয়নের নওগাঁ গ্রামে অবস্থিত হাজী শাহ শরীফ জিন্দানী রহ: মাজারে সিন্নি বিতরণের আয়োজন করেন ফরিদুল ইসলাম।

সেই মোতাবেক সকালে ফরিদ তার প্রায় ৫০ জন আত্মীয় স্বজন নিয়ে মাজারে যান। সেখানে জুম্মার নামাজ শেষে ফরিদের লোকজন মাজার চত্বরে সিন্নি বিতরণ শুরু করেন।

এমন সময় একজন সেখানে থাকা নারীদের তিনটি হাতব্যাগ চুরি করে। এর মধ্যে একজন চোরকে ধরে ফেললে চোরের পক্ষ নিয়ে স্থানীয় কিছু যুবক বাকবিতণ্ডায় জড়ান।

এক পর্যায়ে তারা লাঠিসোটা, লোহার রড ও বৈদ্যুতিক তার নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সংঘর্ষে আবু সাঈদ (৪০), মশিউর রহমান (১৫), সজিব (২০), সাইফুল ইসলাম (৫০), শরিফুল ইসলাম (২১), রাসেল (৩০), ফরিদ (৩০), রাকিব (২৫) ও মনিকাসহ (৩৪) অন্তত ১২ জন গুরুতর আহত হন।

পরে এ খবর পেয়ে তাড়াশ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এদিকে, সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে ছয়জনকে তাড়াশ ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও অবশিষ্ট অন্যান্যদের বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে তাড়াশ থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম জানান, সংঘর্ষে আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন পক্ষই থানায় মামলা করেনি।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট