চট্টগ্রাম রবিবার, ২২ মে, ২০২২

সর্বশেষ:

২৭ জানুয়ারি, ২০২২ | ৬:৫২ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

‘কোনো রাজনৈতিক দলের প্রভাবে প্রভাবিত হইনি’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো রাজনৈতিক দলের চাপ ছিল না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, নির্বাচনে কোনো রাজনৈতিক দলের চাপ ছিল না। কোনো রাজনৈতিক দলের প্রভাবে প্রভাবিত হইনি। ক্ষমতাসীন দলের একাধিক সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করেছি। আদালতে গিয়ে তাদের জামিন নিয়ে আসতে হয়েছে। অনেক মামলা বিচারাধীন আছে।

তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনের আগেও আমি বলেছিলাম, কোনো রাজনৈতিক দলের চাপ আগেও ছিল না, এখনো নেই।

কুমিল্লা এবং নারায়ণগঞ্জে আমাদের যে অবস্থান অন্য কোনো নির্বাচনের চেয়ে একটুও অতিরিক্ত অবস্থান ছিল না। অন্য সবগুলো নির্বাচন যেভাবে করেছি, সেভাবেই হয়েছে। একটা জায়গায় আমাদের অতৃপ্তি আছে, কুমিল্লা ও নারায়ণগঞ্জ ছাড়া অন্য জায়গায় সংঘাত হয়েছে। সকাল থেকে আমরা দেখি পরিচ্ছন্ন ভোট হচ্ছে। যখন ফল ঘোষণা করা হয়, তখন হানাহানি হয়। এগুলো কাম্য না, বলেন তিনি।

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের এ যাবৎকালের কার্যক্রম তুলে ধরে তিনি বলেন, করোনা মহামারিতে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় যেটা জনগণের ভোটাধিকার প্রক্রিয়া এবং জনপ্রতিনিধিদের পরিবর্তনের প্রক্রিয়া, এটা আমরা বন্ধ রাখিনি। অ্যাট এনি কস্ট, ঝুঁকি নিয়ে…বর্তমান নির্বাচন কমিশনের প্রায় ২০ জন লোক করোনায় আক্রান্ত, এর মধ্যেও আমরা পিছিয়ে থাকিনি। নির্বাচন আমরা সম্পন্ন করেছি।

নুরুল হুদা বলেন, নির্বাচন কমিশন অন আর্থ ইজ আ ভেরি কমপ্লেক্স ইনস্টিটিউশন্স। নির্বাচন কমিশন ওয়ান অব দ্য মোস্ট কমপ্লেক্স ইনস্টিটিউশন্স অন আর্থ এভরিহয়ার। সুতরাং এখানে আমাদের সমালোচনা থাকবেই। সেটা অত্যন্ত আগ্রহের সঙ্গে আমরা দেখি এবং যেখানে গঠনমূলক সমালোচনা থেকে সেগুলো আমরা রেসপন্স করি। কিছু সমালোচনা থাকে একবারে ব্যক্তি কেন্দ্রিক। একজন সমালোচক আছেন বদিউল আলম মজুমদার। নির্বাচন কমিশনের কথা এলেই তিনি ‘এই নুরুল হুদা নির্বাচন কমিশন’ এ কথা বলে ফেলেন। এটার একটা ঘটনা আছে, সেটা বলা দরকার। আমরা যখন এখানে যোগদান করি, এর একদিন-দুদিন পর থেকে তিনি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করা শুরু করেন। তিনি আমার পূর্ব পরিচিত। অপ্রস্তুত অবস্থায় একদিন তার সঙ্গে দেখা করলাম। তিনি অনেকগুলো লোক নিয়ে এলেন। তিনি বড় একটি বই দিলেন, বললেন আমরা এই কাজটা করেছি। বললেন, আমরা হলফনামা সংগ্রহ করে ছাপাই।

সম্প্রতি এটিএম শামসুল হুদা নুরুল হুদা কমিশনের সমালোচনা করে বলেন, সদিচ্ছা থাকলে বর্তমান নির্বাচন কমিশন ভালো নির্বাচন করতে পারত। তাদের ‘পারফরম্যান্স সন্তোষজনক নয়’।

এই সমালোচনার জবাব দিতে গিয়ে সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এটিএম শামসুল হুদা এবং নাগরিক সংগঠন সুজন-এর সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারকে একহাত নিয়েছেন সিইসি কেএম নুরুল হুদা।

সিইসি কেএম নুরুল হুদা বলেন, কদিন আগে এটিএম শামসুল হুদা সাহেব সবক দিলেন। তিনি বললেন, আমাদের অনেক কাজ করার কথা ছিল, করতে পারিনি, বিতর্ক সৃষ্টি করেছি। একজন সিইসি হিসেবে তার কথা আমার কাছে গ্রহণযোগ্য মনে হয়নি।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট