চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৩ জুলাই, ২০১৯ | ২:১৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক হ ঢাকা অফিস

প্রিয়া সাহাকে সাময়িক বহিষ্কার

তথ্য বিকৃতির প্রতিবাদ আবুল বারাকাতের

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের অসত্য অভিযোগ দেওয়া প্রিয়া সাহাকে (প্রিয়াবালা বিশ্বাস) বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট প্রিয়া সাহার দেয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে তাকে আইনের আওতায় নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন। অপর দিকে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি ড. আবুল বারাকাত এক বিবৃতিতে প্রিয়া সাহা তার গবেষণার বিষয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন বলে তার প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
গতকাল সোমবার ঐক্য পরিষদের স্থায়ী কমিটির এক জরুরি সভায় প্রিয়া সাহাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সংগঠনের কার্যালয়ে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন ঐক্য পরিষদের সভাপতিম-লীর সদস্য ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিমচন্দ্র ভৌমিক। পরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সিদ্ধান্তটি জানিয়ে বলা হয়, ঐক্য পরিষদের অন্যতম সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহাকে ‘শৃঙ্খলাবিরোধী কাজের জন্য’ সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে সব সাংগঠনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর হবে। এদিকে গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার মিথ্যা অভিযোগের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দেশের প্রচলিত আইনে বিচার চেয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত পাল বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার অভিযোগ বাস্তবসম্মত নয়। তিন কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মানুষ নিখোঁজ হয়েছে, এ তথ্য বানোয়াট, অসত্য ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অন্য দেশের নিকট বিচার চাওয়া গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। আমরা সম্মিলিতভাবে প্রিয়া সাহার বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছি।’ কাদের প্ররোচনায় কোন উদ্দেশ্যে প্রিয়া সাহা এই মিথ্যাচার করেছেন, সে বিষয়ে তিনি একটি সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া, খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও সচিব নির্মল রোজারিও। আরো উপস্থিত ছিলেন ট্রাস্টি উজ্জ্বল প্রসাদ কানু, পরিতোষ কান্তি সাহা, শ্যামল ভট্টাচার্য্য, দয়াল কুমার বড়ুয়া, ডালিম কুমার বড়ুয়া ও জে এম সুব্রত হাজরা।
বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি ড. আবুল বারকাতও গতকাল এক বিবৃতিতে বলেন, প্রিয়া সাহা কখনও আমার সহ-গবেষক, গবেষণা সহযোগী অথবা গবেষণা সহকারী ছিলেন না। প্রিয়া সাহা আমার গবেষনার তথ্য-উপাত্ত বিকৃতভাবে উপস্থাপন করেছেন। আর এমন বক্তব্য তিনি প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 379 People

সম্পর্কিত পোস্ট