চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৬ জুলাই, ২০১৯ | ৬:১৫ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরবাসীর বিজয়, হেরে গেলেন ষড়যন্ত্রকারীরা : বিদিশা

নানা নাটকীয়তা আর জল্পনা-কল্পনার পর অবশেষে রংপুরের পল্লী নিবাসেই সমাহিত হচ্ছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। রংপুরবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পল্লী নিবাসে দাফন করার অনুমতি দিয়েছেন বেগম রওশন এরশাদ। পাশে তার জন্যেও (রওশন এরশাদ) জন্য কবরের জায়গা রাখার অনুরোধও করেছেন তিনি।

যদিও এর আগে ছোট ভাই জিএম কাদেরের নির্দেশে এরশাদের দাফন রাজধানীর সামরিক কবরস্থানে সমাহিত করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। পরে সে সিদ্ধান্ত বদলে রংপুর পল্লী নিবাসেই ঠিক হয় দাফনের স্থান।

এদিকে, এইচএম এরশাদের দাফন রংপুরে ঠিক হওয়ায় সিদ্ধান্তকে রংপুরবাসীর বিজয়ী হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন তার সাবেক স্ত্রী বিদিশা। আজ মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) পৌনে বিকেল তিনটার দিকে নিজের ফেসবুক পেইজে এক স্ট্যাটাস দিয়ে এ কথা জানান তিনি।

সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘রংপুরবাসীর বিজয়। হেরে গেলেন ষড়যন্ত্রকারীরা’।

প্রয়াত সাবেক স্বামীর এইচএম এরশাদের মৃত্যুর পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বেশ সরব হয়ে উঠেছেন বিদিশা। দিয়ে যাচ্ছেন একের পর এক স্ট্যাটাস। আজ মঙ্গলবার সকালে আরেক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, দোয়া করি রংপুরের পল্লী নিবাস যেন শেষ ঠিকানা হয়।

এর আগে গতকাল সোমবার প্রয়াত এরশাদ ও ছেলে এরিক এরশাদকে নিয়ে এক স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। সেখানে তিনি রংপুরের মানুষের দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন। এছাড়া এরশাদ বেঁচে থাকাকালীন সময়ে পল্লীনিবাসে তার যেন শেষ ঠিকানা হয় সে কথাও জানান বিদিশা। দেশে ফিরে সাবেক স্বামীর মরদেহ শেষবার দেখতে না পাওয়া ও ছেলে এরিক এরশাদকে নিয়ে রাজনীতির অভিযোগ তোলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, রবিবার সকালে জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। দীর্ঘদিন ধরে রক্তে হিমোগ্লোবিনের স্বল্পতা, ফুসফুসে সংক্রমণ ও কিডনির জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি।

পূর্বকোণ/রাশেদ

The Post Viewed By: 318 People

সম্পর্কিত পোস্ট