চট্টগ্রাম সোমবার, ২১ জুন, ২০২১

৮ মে, ২০২১ | ১০:২৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নমুনায় নেগেটিভ ২৬ শতাংশের শরীরে মিলেছে এন্টিবডি

আরটিপিসিআর ল্যাবে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসা ব্যক্তিদের মধ্যে প্রায় ২৬ শতাংশের শরীরে এন্টিবডির উপস্থিতি পেয়েছে চট্টগ্রামের একটি গবেষক দল। গবেষণায় আরটিপিসিআর পজিটিভ রোগীদের প্রায় ৯০ শতাংশের শরীরেও এন্টিবডি পাওয়া গেছে। গবেষণায় অন্তর্ভুক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ৬৫ শতাংশের শরীরে এন্টিবডির উপস্থিতি রয়েছে।

কোভিড-১৯ এন্টিবডি’র উপস্থিতি সংক্রান্ত এক গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে। চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. মো. আব্দুর রব এর নেতৃত্বে এই গবেষণা পরিচালনায় অংশ নেন ডা. এইচ এম হামিদুল্লাহ মেহেদী, ডা. মোহাম্মদ আসিফ খান, ডা. এম এ কবির চৌধুরী, ডা. অমি দেব এবং ডা. মোরতাহিনা রশিদ।

গতকাল শনিবার গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন- বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর, সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী এবং সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি।

কোভিড-১৯ আক্রান্ত ও উপসর্গযুক্ত রোগীদের শরীরে কোভিড-১৯ বিরোধী এন্টিবডির উপস্থিতি এবং এর স্থায়ীত্ব অনুসন্ধান করার উদ্দেশ্যে এ গবেষণা পরিচালিত হয়। একই সাথে রোগীদের আর্থসামাজিক অবস্থা, কোভিড আক্রান্ত হওয়ার সময় তাদের মধ্যে কি কি উপসর্গ বিদ্যমান ছিল এবং কোভিড থেকে সুস্থ হওয়ার পরও কোন ধরনের দীর্ঘ মেয়াদি জটিলতা রয়ে গেছে কিনা এসব তথ্য আহরণ করা ইত্যাদি ছিল এ গবেষনার অন্যতম উদ্দেশ্য।

২০২০ সালের অক্টোবর মাসে শুরু হয়ে চলতি বছরের এপ্রিল পর্যন্ত চলমান এ গবেষণায় দৈবচয়নের ভিত্তিতে চট্টগ্রামের ১ হাজার ৫৩০ জন (আরটিপিসিআর পজিটিভ- ৯৪১ এবং আরটিপিসিআর নেগেটিভ- ৫৮৯) ব্যক্তিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এস আলম গ্রুপ ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহযোগিতায় পরিচালিত এই গবেষণায় দেখা গেছে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ৭৫ শতাংশ পুরুষ এবং ৭০ শতাংশ চাকরিজীবী।

কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর তাদের প্রধান লক্ষণগুলো ছিলো- জ্বর (৯২%), কাশি (৬৩%), ঘ্রাণশক্তি লোপ (৫২%)। এছাড়াও গলাব্যথা, মাথাব্যথা, পাতলা পায়খানা, শ্বাসকষ্ট উপসর্গ ছিলো তাদের। আক্রান্ত জনগোষ্ঠীর অনেকেই আগে থেকে ডায়াবেটিস (১৫%), উচ্চ রক্তচাপ (২৩%), শ্বাসতন্ত্রের জটিলতা (৯%), হৃদরোগ ইত্যাদি দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। কোভিড থেকে সুস্থ হওয়ার পরে তাদের প্রায় ৫৭ শতাংশের কোন না কোন উপসর্গ দীর্ঘদিন যাবৎ বিদ্যমান ছিল।

পূর্বকোণ/মামুন

শেয়ার করুন
  • 134
    Shares
The Post Viewed By: 450 People

সম্পর্কিত পোস্ট