চট্টগ্রাম বুধবার, ১৯ মে, ২০২১

সর্বশেষ:

১৩ এপ্রিল, ২০২১ | ৫:১৮ পূর্বাহ্ণ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক

কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে থাকলে আপনার কখন ভ্যাকসিন নেয়া উচিত

এখন পর্যন্ত বিশ্বের কয়েক কোটি মানুষের করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন নেয়া হয়ে গেছে। কিন্তু এখনও অনেক মানুষের মনে কখন টিকা নিতে হবে- সে ব্যাপারে সংশয় রয়ে গেছে। বিশেষত: যারা করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন তাদের মনে এই ‘সংশয়’টা কাজ করছে আরো বেশি করে। আর অবস্থা যদি হয় এমন যে, তারা কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন টিকার দুটি ডোজের মধ্যবর্তী সময়ে, তবে এই ভ্যাকসিন গ্রহণে কোনোও সিদ্ধান্তে আসা আরও জটিল হয়ে ওঠে।

এক্ষেত্রে সিএনএন’র মেডিকেল অ্যানালিস্ট ড. লিয়ানা ওয়েনের (ইনি জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি মিলকেন ইনস্টিটিউট স্কুল অফ পাবলিক হেলথের জরুরী চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য নীতি ও পরিচালনার ভিজিটিং প্রফেসরও) মতে, টিকা দেওয়ার সময় লোকেদের বিভিন্ন বিষয় বিবেচনায় নিতে হবে, যেমন, কোভিড -১৯ সনাক্ত করা গেলে আপনার লক্ষণগুলি পর্যবেক্ষণ করা এবং করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন গ্রহণের সময় আপনি সুস্থ আছেন তা নিশ্চিত হওয়া। এ ব্যাপারে কয়েকটি সূক্ষ্ম বিষয় তিনি উল্লেখ করেছেন।

যদি এমন হয় যে, রোগী কোভিড -১৯-এ আক্রান্ত ছিলেন গত বছর; সেক্ষেত্রে তার পরামর্শ হল, আপনি যদি ভ্যাকসিন গ্রহণের যোগ্য হন তবে এটি নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের জেনে রাখতে হবে প্রাকৃতিকভাবে শরীর ‘যতটুকু রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা অর্জন করে, ভ্যাকসিন আপনাকে চেয়ে আরও ভাল, দীর্ঘতর এবং অবশ্যই আরও ধারাবাহিক সুরক্ষা সরবরাহ করতে সক্ষম’।

আবার যদি ‘রোগী সম্প্রতি কোভিড -১৯-এ আক্রান্ত ছিলেন’ এমন হয়, সেক্ষেত্রে তার পরামর্শ হল- রোগীর উচিত হবে বর্তমান আইসোলেশন পিরিয়ডটা (১০ দিন) পার করা। এ সময়কালে রোগী কোভিডের কোনোও গুরুতর লক্ষন নিজের মধ্যে অনুভব না করলে, অর্থাৎ নিজে যথেষ্ট সুস্থ বোধ করলে টিকাটি নিয়ে নিতে পারেন।

আবার এখনও লোকেদের মধ্যে আরেকটিা সংশয় কাজ করছে- ‘তাদের কি ভ্যাকসিনের উভয় ডোজ নেওয়া উচিত কিনা’। এ ব্যাপারে ওয়েনের জবাবটা বেশ সোজাসাপ্টা। তিনি বলেছেন, যদি আপনি দুই ডোজের ভ্যাকসিন নিয়ে থাকেন, তবে আপনার জন্য ভ্যাকসিনের উভয় ডোজ গ্রহণ করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কেননা ‘লোকেরা দুটি ডোজই গ্রহণ করবে প্রকৃত সুফল পাবার জন্য’ এই ধারণার অধীনেই ভ্যাকসিনগুলি তৈরি করা হয়েছে। তাই যতক্ষণ না উভয় ডোজ গ্রহণ করা হচ্ছে ততক্ষণ সম্পূর্ণ কার্যকারিতা আশা করা যায়না।

আবার দেখা যায়, ভ্যাকসিনের প্রথম ও ২য় ডোজের মধ্যবর্তী সময়েও অনেকে ওই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। এ ব্যাপারেও তিনি সরল উত্তর দিয়েছেন। বলেছেন, ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ কিছুটা সুরক্ষা সরবরাহ করে তবে দুটি মাত্রার চেয়ে বেশি নয়, তাই এই দুই ডোজের মধ্যবর্তী সময়ে ভাইরাসের সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েই যায়। এমন সময়ে অবশ্যি শরীরকে সময় দিতে হবে সুস্থ হয়ে উঠার। মনে রাখা দরকার প্রথম ডোজের পর শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা যথেষ্ট পরিমাণেই বেড়েছে। তাই এ অবস্থায় আক্রান্ত হলেও আপনার দেহটিকে পুনরুদ্ধার করার সুযোগ দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ, তাই লক্ষণগুলি থেকে মুক্ত হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা ভাল। এর পরে, আপনার দ্বিতীয় ডোজটি নেন সমস্যা নেই।
(সূত্র : সিএনএন)

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 846 People

সম্পর্কিত পোস্ট