চট্টগ্রাম রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১

১ মার্চ, ২০২১ | ১০:৩৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ষড়যন্ত্র করে আমাকে `বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

তিনি নিজেকে প্রতিহিংসা আর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রাজনীতির নোংরামির শিকার বলে দাবি করেছেন গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির ঘটনায় পদাবনতি হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক সামিয়া রহমান। তিনি দাবি করেন, আমাকে ষড়যন্ত্র করে অন্যায়ভাবে ফাঁসানো হয়েছে। আমাকে বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে আমি ন্যায়বিচার পাইনি।

আজ সোমবার (১ মার্চ) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

সামিয়া রহমান জানান, যে গবেষণার লেখার জন্য তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে, তা তিনি লেখেননি, জমাও দেননি। এ সংক্রান্ত প্রমাণও তার কাছে আছে।

তিনি বলেন, এই ষড়যন্ত্রের পেছনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কেউ এবং কিছু শিক্ষক জড়িত রয়েছেন। তাদের নাম না বলে সাংবাদিকদের এ বিষয়ে অনুসন্ধানের অনুরোধ জানান তিনি।

সামিয়া রহমান বলেন, তদন্ত কমিটি শুরু থেকে প্রতিহিংসাপরায়ণ। দীর্ঘ চার বছর তারা তদন্ত ঝুলিয়ে রেখেছিলেন। প্রতিটি মিটিংয়ের পর যেচে পড়ে তদন্ত কমিটির দুই-তিনজন সদস্য সাংবাদিকদের ডেকে আমার বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছেন তদন্ত শেষ হওয়ার আগেই। তদন্ত শেষ হওয়ার আগেই আমার বিরুদ্ধে রায় তারা তৈরি করে রাখেন।

নিজের পরবর্তী পদক্ষেপের বিষয়ে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত অভিভাবক চ্যান্সেলর ও রাষ্ট্রপতির কাছে আমাদের আবেদন, তিনি যেন প্রকৃত সত্য উৎঘাটনে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। আমার বিশ্বাস তিনি নির্দেশ দিলে সত্যি ঘটনা, ষড়যন্ত্র সব প্রকাশিত হবে। একইসঙ্গে আমি একটি আইনি পদক্ষেপের মধ্যেও রয়েছি।

সংবাদ সম্মেলনে সামিয়া রহমানের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজ, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ প্রমুখ।

পূর্বকোণ/মামুন

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 749 People

সম্পর্কিত পোস্ট