চট্টগ্রাম শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সর্বশেষ:

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১:০২ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

করোনার টিকা নিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

রাজধানীসহ সারাদেশে করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধনের পর স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনার টিকা নেন। রবিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক করোনার টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমরা আজকে একটি মহৎ কাজ করতে যাচ্ছি। বাংলাদেশে প্রথম ৮ মার্চ করোনা দেখা দেয়। তখন থেকেই আমরা প্রস্তুতি গ্রহণ শুরু করি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা এগোতে থাকি। অনেক সমালোচনা হয়েছে, সমস্ত সমালোচনার উর্ধ্বে উঠে আমরা কাজ করতে থাকি।’

তিনি বলেন, আজকে আমরা সারাদেশব্যাপী ভ্যাকসিন কার্যক্রম উদ্ধোধন করতে যাচ্ছি। দেশের সকল জেলার সাথে আমরা যুক্ত হয়ে দেশের সকল সম্মানিত ব্যক্তিদের সাথে একসাথে ভ্যাকসিন গ্রহণ করব। এই ভ্যাকসিন নিয়ে যাতে কোন ভুয়া তথ্য না ছড়ায় এই আশা করছি। যতগুলো ভ্যাকসিন আছে তারমধ্যে এস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন বেশি নিরাপদ। এর পার্শপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। যতগুলো মানুষকে আমরা ভ্যাকসিন দিয়ে তারা সবাই ভালো আছে সুস্থ আছে।

বর্তমানে বাংলাদেশের অবস্থান অন্যান্য দেশের থেকে তুলণামূলক অনেক ভালো বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমরা জুন মাস থেকে ভ্যাকসিন আনার কাজ শুরু করি। আমাদের কাছে ৭০ লাখ ভ্যাকসিন আছে। যেটা ৩৫ লাখ লোককে আমরা দুই ডোজ করে দিতে পারব।’

তিনি আরো বলেন, সারা বছরব্যাপী আমাদের এই করোনা ভাইরাসের টিকা কর্মসূচী চলবে। এটা একদিনের বিষয় নয়, এক মাসের বিষয় নয়। সারা বছর ধরে এই ভ্যাকসিন কার্যক্রম চলমান থাকবে। আমাদের ভ্যাকসিন আসতে ছয় মাস লাগবে। তারপর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে কোভ্যাক্স ভ্যাকসিন আসবে। তারপর থেকে থেকে আমরা সেই ভ্যাকসিন দিতে থাকব।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, টিকা নিতে ইতোমধ্যে তিন লাখ ২৮ হাজার জন নিবন্ধন করেছেন। টিকার কর্মসূচী সফল করতে সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেই এই কর্মসূচী শুরু করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

এছাড়া রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে প্রধান বিচারপতি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব ও মন্ত্রিপরিষদ সচিব টিকা নেবেন।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 121 People

সম্পর্কিত পোস্ট