চট্টগ্রাম সোমবার, ০৮ মার্চ, ২০২১

২৯ জানুয়ারি, ২০২১ | ৭:৪৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

পাপুলের সাজা নিয়ে কিছুই করার নেই : আশিকুজ্জামান

অর্থপাচার ও মানবপাচারে জড়িত থাকার দায়ে লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন কুয়েতের আদালত। এমপি পাপুলের এ সাজাকে নিয়ে বাংলাদেশের দূতাবসের কিছুই করার নেই বলে জানিয়েছেন কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল (অব.) আশিকুজ্জামান।

শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে টেলিফোনে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানান।

রাষ্ট্রদূত বলেন, কুয়েত সরকার ও বিচার বিভাগের নিজস্ব বিচার বিভাগের মাধ্যমে এ সাজা দেয়া হয়েছে বিধায় এখানে আমাদের কিছুই করার নেই।’

গতকাল বৃহস্পতিবার কুয়েতের ফৌজদারি আদালতের বিচারক আবদুল্লাহ আল ওসমান এমপি পাপুলকে দোষী সাব্যস্ত করে এ রায় দেন। কারাদণ্ডের পাশাপাশি পাপুলকে ১৯ লাখ কুয়েতি দিনার (প্রায় ৫৩ কোটি ২১ লাখ টাকা) জরিমানাও করা হয়েছে।
এছাড়া আদালত পাপুল ছাড়াও কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরখাস্তকৃত কর্মকর্তা মাজেন আল জাররাহসহ কুয়েতি তিন কর্মকর্তাকেও চার বছরের কারাদণ্ড এবং একই পরিমাণ অর্থদণ্ড দিয়েছেন। কুয়েতের এই জেনারেলসহ ওই কর্মকর্তারা সে দেশে পাপুলকে অনৈতিকভাবে ব্যবসা পরিচালনায় মদদ দিয়েছেন।

এর আগে বাংলাদেশের কোনো আইন প্রণেতার এভাবে বিদেশে দণ্ডিত হওয়ার ঘটনা ঘটে নি।

অর্থপাচার ও মানবপাচারের অভিযোগ নিয়ে একজন সংসদ সদস্যের বিদেশের কারাগারে আটক থাকা এবং শেষ পর্যন্ত অভিযোগ প্রমাণিত হয়ে সাজা পাওয়া অত্যন্ত লজ্জাজনক বলে কূটনৈতীক সূত্র থেকে বলা হয়।

উল্লেখ্য, অর্থপাচার, মানবপাচার ও শ্রমিক শোষণের অভিযোগে গত ৬ জুন কুয়েত সিটির মুশরিফ এলাকার বাসা থেকে পাপুলকে গ্রেপ্তার করে সে দেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পাপুল প্রায় আট মাস ধরে কুয়েতে আটক আছেন।

পাপুলের বিরুদ্ধে পাঁচ বাংলাদেশির অভিযোগের ভিত্তিতে মানবপাচার, অর্থপাচার ও ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের শোষণের অভিযোগে মামলা করা হয়।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 355 People

সম্পর্কিত পোস্ট