চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০২ মার্চ, ২০২১

২৭ জানুয়ারি, ২০২১ | ৩:১০ অপরাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

চট্টগ্রামের ভোটের ‍উত্তাপ সংসদে

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনের ভোটে সহিংসতার তথ্য তুলে ধরে জাতীয় সংসদে অভিযোগ করে বক্তব্য দিয়েছেন বিএনপির দুই সংসদ সদস্য। তাঁদের অভিযোগ, ভোটকক্ষ থেকে ধানের শীষের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। এর বিপরীতে অবস্থান নিয়ে সংসদে ক্ষমতাসীন দল ও জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা নিজেদের এলাকায় সুষ্ঠু ভোট হওয়ার অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। আর এতেই চট্টগ্রামের ভোটকে কেন্দ্র করে সংসদে উত্তাপ ছড়ায়।

বুধবার (২৭ জানুয়ারি) ‘দ্য সিভিল কোর্টস (সংশোধন) – ২০২১’ সংসদে পাসের সময় বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ জনমত যাচাইয়ের প্রস্তাব তোলেন। এ সময় চাঁপাইনবাবগঞ্জের এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘সংবিধানে বলা আছে, সকল পর্যায়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিরা প্রশাসন চালাবেন। কিন্তু আজ কী হচ্ছে? নির্বাচনের নামে তামাশা হচ্ছে। প্রহসন হচ্ছে। এর প্রয়োজন নেই তো। ভোটের প্রয়োজন নেই, আইন করে নির্বাহী ক্ষমতাবলে প্রধানমন্ত্রী যাকে খুশি মনোনয়ন দেবেন। তিনি নির্বাচিত হবেন। সকালে দেখলাম, চট্টগ্রামের সিটি করপোরেশনে কী হচ্ছে।’

এ সময় সরকারদলীয় সদস্যরা নিজেদের অবস্থান থেকে দাঁড়িয়ে চিৎকার করে হারুনুর রশীদের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। হারুন এ সময় বলেন, ‘একটুকুও অসত্য বলছি না। তথ্য জেনে বলছি।’

পরে সংশোধনী প্রস্তাব তোলার সময় হারুনুর রশীদ আবার বলেন, ‘এখনই দেখেন চট্টগ্রামে বহু কেন্দ্র থেকে এজেন্ট বের করে দেয়া হয়েছে। গণমাধ্যামকর্মীদের পাস দেয়া হচ্ছে না। চাইলে এখনই ফোনে দেখাতে পারব।’

পরে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক অন্য সদস্যদের জনমত যাচাইয়ের প্রস্তাবের জবাব দেয়ার পর বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদের বক্তব্যের সমালোচনায় বলেন, ‘আমরা এখানে যারা আছি গতকালকে জন্ম নেইনি। উনারা নির্বাচনের কথা বলছেন। আমরা জিয়াউর রহমানের সময় ‘হ্যাঁ’, ‘না’ ভোট দেখেছি। ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন দেখেছি। ব্যালট বাক্স পাওয়া যেত না। ভোট যে দেবে ব্যালট বাক্স নেই। যাদের এই চরিত্র তাদের কাছ থেকে নির্বাচন কীভাবে সুষ্ঠু করতে হয় সেটা শেখার প্রয়োজন নেই। জনগণকে ভোট দেওয়ার অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছি।’

পরে সংশোধনী প্রস্তাব তোলার সময় বিএনপির সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা বলেন, ‘ভোট দেয় প্রশাসন। আর দেখে জনগণ। ভোটটা সুষ্ঠু করে করলেই তো হয়। কারো থেকে ভোট শিখতে হবে না। ভোট কীভাবে দিতে হয় সেটা সবাই জানে। ভোটটা দিতে দিলেই হয়।’

পরে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক বলেন, তাঁর এলাকায় পৌরসভা নির্বাচন ‘অত্যন্ত সুষ্ঠু’ হয়েছে।

জাতীয় পার্টির আরেক সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান বলেন, সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরসভায় বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। বিএনপির প্রার্থী নিজেই বলেছেন, নির্বাচন সুন্দর হয়েছে। তাঁর ওই বক্তব্য বিবিসিতেও প্রচারিত হয়েছে।

জাতীয় পার্টির আরেক সংসদ সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন, তাঁর পৌরসভায় ৮৪ শতাংশ ভোট পড়েছে। এতে লাঙ্গল জয়ী হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নির্বাচনে আজ বুধবার (২৭ জানুয়ারি) সকাল ৮টায় ভোট শুরু হয়। বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৭৩৫টি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ চলবে। করপোরেশনের ষষ্ঠ নির্বাচনে মেয়র পদের জন্য সাতজনসহ মোট ২৩২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মহানগর এলাকায় ভোটার সংখ্যা সর্বমোট ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন।

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 1016 People

সম্পর্কিত পোস্ট