চট্টগ্রাম শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১০ জানুয়ারি, ২০২১ | ৫:৫৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘খুন্তি’ দিয়ে গৃহকর্মীকে নির্যাতন করতেন কলেজ শিক্ষিকা

গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের দর্শন বিভাগের এক প্রভাষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ভুক্তভোগীর নাম মিনতি খাতুন (১০) ও নির্যাতনকারী প্রভাষকের নাম শিউলী মল্লিকা (৩৬)। গতকাল শনিবার (৯ জানুয়ারি) শিউলী মল্লিকাকে গ্রেপ্তার করে আজ রবিবার (১০ জানুয়ারি) আদালতের মাধ্যমে তাকে সিরাজগঞ্জ জেলে প্রেরণ করেন।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি বাহা উদ্দিন ফারুকী জানান, গত ৭ জানুয়ারি শিউলি মল্লিকা তার বাসার শিশু গৃহকর্মী মিনতি খাতুন হারিয়ে গেছে মর্মে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে ৯ জানুয়ারি শনিবার সন্ধ্যায় শিশু মিনতিকে অসুস্থাবস্থায় উদ্ধার করা হয়। শিশু মিনতি জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, প্রতিদিনের নির্মম নির্যাতন সইতে না পেরেই সে ওইদিন বাসা থেকে কৌশলে পালিয়ে যায়। তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্নও রয়েছে।

বাহা উদ্দিন ফারুকী আরও জানান, অভাবের সংসারে খাবার না পেয়ে ৯ বছর বয়সে সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ২৫০ শয্যা হাসপাতালের ডাক্তার নুরুল ইসলাম ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের দর্শন বিভাগের শিক্ষিকা শিউলি মল্লিকার সিরাজগঞ্জ শহরের ফজল খান রোডের বাসায় গৃহকর্মীর হিসেবে যোগ দেয়। এর মাসখানেক পর থেকেই শিউলি মল্লিকা মিনতির উপর অমানবিক নির্যাতন শুরু করে। গত ৭ জানুয়ারি শিউলির এ নির্যাতন সইতে না পেরেই মিনতি বাসা থেকে পালিয়ে যায়। অসুস্থ শরীর আর কান্নাকাটি দেখে ওইদিন সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার ভদ্রঘাট গ্রামের জাহানারা খাতুন নামের এক নারী মিনতিকে উদ্ধার করে চিকিৎসা ও খাবার কিনে দেয়।

এরপর তিনি মিনতিকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। খবর পেয়ে মিনতির খালু আবুল কাশেম থানায় ছুটে আসেন। তিনি মিনতির কাছে থেকে সব শুনে নিজে বাদি হয়ে শিক্ষিকা শিউলি মল্লিকার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে শিক্ষিকা শিউলি মল্লিকাকে তার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে।

নির্যাতনের শিকার মিনতি খাতুন জানায়, শিউলি আপা আমাকে প্রতিদিন নানাভাবে মারধর করে। হাতের কাছে ঝাড়ু, লাঠি, চামচ ও খুন্তি যা পায় তা দিয়েই মারে। আমি মার সইতে না পেরেই বাসা থেকে পালিয়ে যাই। আমি এখন তার হাত থেকে বাঁচতে চাই। আর শিউলি আপার বিচার চাই।

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 556 People

সম্পর্কিত পোস্ট