চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১

রাজাকারের তালিকা: নতুন আইনের খসড়া অনুমোদন

৭ ডিসেম্বর, ২০২০ | ৫:৫৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজাকারের তালিকা: নতুন আইনের খসড়া অনুমোদন

মুক্তিযুদ্ধে রাজাকারদের তালিকা প্রণয়নের বিধান রেখে নতুন করে ‘জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন, ২০২০’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার (৭ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে আইনটির অনুমোদন দেয়া হয়। পরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এই বিষয়ে ব্রিফিং করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ২০০২ সালের জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন ছিল। সেই আইন পরিপূর্ণভাবে বর্তমান সময়ের চাহিদা পূরণে ব্যর্থ। তাই মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইনের নতুন খসড়া করা হয়েছে। আইনটি পাস হলে আগেরটি বাতিল হয়ে যাবে।

বিজ্ঞাপন

খন্দকার আনোয়ার আরও বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত যারা মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার, আলবদর, আল-শামস বাহিনীর সদস্য হিসেবে কর্মকাণ্ডে লিপ্ত ছিলেন বা আধা-সামরিক বাহিনীর সদস্য হিসেবে সশস্ত্র যুদ্ধে নিয়োজিত থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা বা মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছেন, তাদের একটা তালিকা প্রণয়ন ও গেজেট প্রকাশের জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ করবে মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল।

রাজাকারের তালিকা করার বিষয়টি ২০০২ সালের আইনে এই বিধান ছিল না জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এবারের আইনে রাজাকারের তালিকা করার বিষয়টি খসড়া আইনে রাখা হয়েছে। আইনে সব বিষয়ে ডিটেইল করা নেই, এটা রুল করবে। স্বাধীনতাবিরোধী বলতে কী বোঝাবে, রুলে তা বিস্তারিত বলা থাকবে। আগে আইন হোক, এরপর বিধি করবে।

আনোয়ারুল জানান, প্রস্তাবিত নতুন আইনে আগের মতই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়ন ও গেজেট প্রকাশের জন্য সরকারের কাছে সুপারিশের কথা বলা আছে। মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল অসত্য তথ্যের ভিত্তিতে গেজেটভুক্ত ও সনদপ্রাপ্ত অমুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করবে।

কাউন্সিল মুক্তিযোদ্ধার ‘ভুয়া’ সনদধারীদের বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করবে জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, শুধু সার্টিফিকেট নিয়েছে, নাকি অন্য সুবিধা নিয়েছে, নাকি দুটোই নিয়েছে- এটা অপরাধের ধরনের উপর নির্ভর করবে। এছাড়া তার সন্তানরাও সুযোগ-সুবিধা নিয়েছেন কি না, আইন অনুযায়ী শাস্তির সুপারিশ করা হবে। এ ধরনের ক্ষেত্রে দণ্ডবিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 128 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট