চট্টগ্রাম শনিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২১

২ অক্টোবর, ২০২০ | ৫:০৭ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচারের দাবিতে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার দাবি করেছেন ভুক্তভোগীরা।

আজ শুক্রবার (২ অক্টোবর) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘সাতাত্তরের ষড়যন্ত্রের শিকার আমরা’ ব্যানারে ১৯৭৭ সালে অভ্যুত্থানের অভিযোগে সাজাপ্রাপ্ত ও তাদের স্বজনরা মানববন্ধন করেন।

বিজ্ঞাপন

ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত সার্জেন্ট দেলোয়ার হোসেনের ছেলে নূরে আলম জানান, আজ ৪৩ বছর বাবা নিখোঁজ। বাবা যখন হারিয়ে যান, তখন আমারতার দেড় বছর। বাবার কোনও স্মৃতি মনে নেই। প্রতি বছর এই দিনে যখন চাচারা তার পাশে এসে দাঁড়ান, তখন তার মনে হয় বাবার ঘ্রাণ পাচ্ছে। বাবার খোঁজে তার মা দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন। সেদিন কী ঘটেছে, নূরে আলম জানতে চায়। তদন্ত কমিশন গঠন করে সুষ্ঠু বিচার চান তিনি।

২০ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিমান বাহিনীর করপোরাল গাজী গোলাম মাওলা হিরু মানববন্ধনে সাত দফা দাবি উত্থাপন করেন। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, ১৯৭৭ সালের ২ অক্টোবর সেনা ও বিমান বাহিনীর সদস্য যারা ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন তাদের নির্দোষ ঘোষণা করা; ওই দিন যারা সামরিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে ফাঁসি-কারাদণ্ড ও চাকরিচ্যুত হয়েছেন তাদের প্রত্যেককে স্ব-স্ব পদে সর্বোচ্চ র‌্যাঙ্কে পদোন্নতি দেখিয়ে বর্তমান স্কেলে বেতন-ভাতা ও পেনশনসহ সরকারি সব ধরনের সুযোগ সুবিধা প্রদান করা; ষড়যন্ত্রের শিকার সেনা ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের পুনর্বাসিত করার লক্ষ্যে তাদের পোষ্যদের যোগ্যতা অনুসারে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ; ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে যেসব মুক্তিযোদ্ধার ফাঁসি হয়েছে তাদের কবর চিহ্নিত করে কবরস্থানে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ; ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে সেনা ও বিমান বাহিনীর সদস্য যাদের ফাঁসি-কারাদণ্ড ও চাকরিচ্যুত হয়েছেন তাদের তালিকা প্রকাশ করা; মুক্তিযুদ্ধের সময় যেসব সেনা ও বিমান বাহিনীর সদস্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী ছিলেন কিন্তু পাকিস্তানি সামরিক জান্তা তাদের পাকিস্তানি বিভিন্ন বন্দিশিবিরে আটকে রেখে নির্যাতন করেছে তাদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ঘোষণা করা এবং জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার।

মানববন্ধন আরও বক্তব্য রাখেন বিমান বাহিনীর সাবেক করপোরাল নুরুল ইসলাম, মুনির শরীফ, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সার্জেন্ট সাইদুর রহমানের ছেলে কামরুজ্জামান লেলিন, অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুত সার্জেন্ট আলী আহমেদে স্ত্রী রওশন আরা বেগম, বাংলাদেশ অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরামের সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় প্রমুখ।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 169 People

সম্পর্কিত পোস্ট