চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

৩ জুন, ২০১৯ | ৮:২০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

টাকার লোভে শ্যালককে অপহরণ

আপন দুলাভাইয়ের (ভগ্নিপতি) হাতে অপহরণের শিকার হওয়া পাঁচ বছরের শিশু আশিককে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) উদ্ধার করেছে।

এ ঘটনায় অপহরণ ও মুক্তিপণ দাবিকারী রনি ইসলাম ও শাহিন মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে অপহরণে ব্যবহৃত দুটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার (৩ জুন) দুপুরে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান আরপিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ।

তিনি বলেন, ‘ছাগল চুরির মামলায় দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পর গত ৩০ মে জামিনে মুক্তি পান আশিকের দুলাভাই রনি ইসলাম। আসন্ন ঈদে মার্কেট করতে ও কারাগারে খরচ হওয়া টাকা তুলতে অপহরণের পূর্বপরিকল্পনা নিয়ে গত ১ জুন রংপুরে তার শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসে সে। সেখান থেকে তার পাঁচ বছরের শিশু শ্যালককে ঘুরতে নিয়ে যাবার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় রনি। পরে ফিল্মি স্টাইলে শিশু আশিককে আইসক্রিম ও চেতনানাশক ঔষধ সেবন করিয়ে তার সহযোগী শাহিন মিয়ার হাতে তুলে দেয়।

কমিশনার আবদুল আলীম বলেন, ‘ওইদিন সন্ধ্যায় রনি ইসলামের পরামর্শে শিশু আশিককে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে নিয়ে যায় মুক্তিপণ দাবিকারী শাহিন মিয়া। সেখান থেকে অপহৃত শিশুর পিতার কাছে মোবাইল ফোনে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে সে। এ সময় রনি তার শ্বশুরবাড়িতে অবস্থান নেয়।’

এ ঘটনার পরের দিন অপহৃত শিশুর পিতা কাল্লু মিয়া তাজহাট থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর আরপিএমপি পুলিশ ও নীলফামারীর সৈয়দপুর থানা পুলিশের সহযোগিতা এবং তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সৈয়দপুরের মোজার মোড় নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার এবং মুক্তিপণ দাবিকারী শাহিন মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে অপহরণের মূল পরিকল্পনাকারী রনি ইসলামের ব্যাপারে তথ্য দেয়। পরে পুলিশ রনি ইসলামকে রংপুর থেকে গ্রেপ্তার করে।

 

পূর্বকোণ/ময়মী

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 223 People

সম্পর্কিত পোস্ট