চট্টগ্রাম বুধবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২০

২৯ মে, ২০১৯ | ৬:০২ অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

সেপ্টেম্বরে উৎপাদনে আসছে পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্র

আগামী সেপ্টেম্বরের শেষদিকে উৎপাদনে আসছে ১৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতার পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্র। নির্ধারিত সময়ের ৫ মাস আগেই কেন্দ্রটির ৬৬০ মেগাওয়াট ক্ষমতার প্রথম ইউনিটের উৎপাদন শুরু হচ্ছে। এটি সরকারি খাতে এ যাবতকালের সর্ববৃহৎ কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র। সেপ্টেম্বরে উৎপাদনে আসলেও পুরোদমে বাণিজ্যিক উৎপাদনে যাবে নভেম্বর মাসে। এছাড়া ৬৬০ মেগাওয়াট ক্ষমতার অন্য ইউনিটটি ২০২০ সালের আগেই উৎপাদনে আসবে।
বিদ্যুৎ বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন। বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার এ এম খোরশেদুল আলম জানান, আমরা আশা করছি আগামী সেপ্টেম্বরে একটি ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করতে পারবো। এই সময়ের মধ্যে কিছু কাজ বাকি আছে, তা শেষ করে ফেলা হবে। তবে, পুরোদমে বাণিজ্যিক উৎপাদনে যেতে নভেম্বর পর্যন্ত সময় লাগবে। তিনি জানান, নির্দিষ্ট সময়ের ৫ মাস আগে কেন্দ্রটি উৎপাদনে আসছে। অন্য ইউনিটটি ২০২০ সালের মধ্যে উৎপাদনে আসবে।
জানা গেছে, পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি আগামী বছরের মে মাসে উৎপাদনে আসার কথা ছিল। কিন্তু আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যেই কেন্দ্রটির একটি ইউনিটের কাজ শেষ হচ্ছে। এরই মধ্যে কেন্দ্রটির নির্মাণকাজ ৭৫ দশমিক ৯৫ শতাংশ এবং আর্থিক ব্যবস্থাপনা ৫৭ দশমিক ২০ শতাংশ শেষ হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানান, কেন্দ্রটির বিদ্যুৎ উৎপাদনের জ্বালানি কয়লা আমদানি করতে ইন্দোনেশিয়ার একটি কোম্পানির সঙ্গে ১০ বছর মেয়াদে চুক্তি করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জানান, এই কেন্দ্রের মূল জ্বালানি কয়লা। এই কয়লা আমদানি করতে আমরা এরইমধ্যে ইন্দোনেশিয়ার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ১০ বছরের জন্য চুক্তি করেছি। আগামী মাস থেকে কয়লা আমদানি শুরু হবে।
বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে সরকারের নেয়া মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০৩০ সালে ৪০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে দেশে। এর মধ্যে কয়লাভিত্তিক ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। বর্তমানে শুধুমাত্র বড়পুকুরিয়ায় ২৫০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র রয়েছে।
এই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে, সরকার পটুয়াখালীর পায়রা এলাকা থেকে মোট ৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হবে। সব মিলিয়ে ১২ বিলিয়ন ডলার বা ৯৬ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ প্রয়োজন হবে।

The Post Viewed By: 439 People

সম্পর্কিত পোস্ট