চট্টগ্রাম বুধবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৫ নভেম্বর, ২০১৯ | ১:৩৪ পূর্বাহ্ন

আদি অস্ত্র বুমেরাং

শিকারের জন্য অন্যতম প্রাচীন অস্ত্র বুমেরাং। যুদ্ধক্ষেত্রেও কাঠের তৈরি এ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হতো। পূর্ব ও পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীর মানুষ এর উদ্ভাবক বলে জানা যায়। এটা এমন অস্ত্র যা লক্ষ্যবস্তুকে আঘাত করতে না পারলে তা নিক্ষেপকারীর হাতে ফিরে আসে। তাদের তৈরি কাঠের বাঁকা এ অস্ত্র সাধারণত ৩০.৭৫ সেমি দৈর্ঘ্য এবং ওজন হয় ৩৪০ গ্রাম। এটাই বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী বুমেরাং হিসেবে পরিচিত। বুমেরাং এমনভাবে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র যার বাহুগুলি ৯০ ডিগ্রিতে বিভক্ত। উভয় পাশ থেকে মোচড়ানো। প্রবল শক্তি ও কৌশলে নিক্ষেপ করলে এটা প্রথমে ৪৫ মিটার প্রশস্ত একটা বৃত্ত ঘুরে আসে এবং পাঁচ পর্যন্ত অপেক্ষাকৃত ক্ষুদ্র বৃত্তে ঘুরে নিক্ষেপকারীর কাছে ফিরে এসে মাটিত পড়ে। তবে সব বুমেরাং ফিরে আসে না। ভারতীয়রা কিছু বুমেরাং পাখি ও খরগোশ শিকারের জন্য ব্যবহার করে যা শুধু শিকারিকে জখম করতে সক্ষম।
তবে শিকার ছাড়াও খেলার জন্যও এক ধরনের বুমেরাং ব্যবহার করা হয়।

The Post Viewed By: 9 People

সম্পর্কিত পোস্ট