চট্টগ্রাম বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

২১ মে, ২০১৯ | ১:২১ পূর্বাহ্ণ

আবদুল মুহিত

মাটির নিচে হাজার বছরের গ্রাম

নিত্য নতুন আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার ,অত্যাধুনিক স্থাপনার কারণে চীনের অনেক শহর গোটা বিশ্বে অনুকরণীয় হয়ে উঠেছে। তবে চীনে এমন একটি রহস্যময় প্রাচীন গ্রামও আছে যেটা তার বিচিত্র স্থাপনার জন্যও বিখ্যাত হয়ে আছে।
চীনের হেনান প্রদেশের সানমেনশিয়ায় রয়েছে অদ্ভুত এই গ্রামটি। প্রায় ৪ হাজার বছর আগে গড়ে ওঠা গ্রামটি মাটির নিচের গ্রাম বলেও পরিচিত। কারণ গ্রামটির অবস্থান মাটি থেকে ২২ থেকে ২৩ ফুট গভীরে।
তবে গ্রামটি মাটির নিচে হলেও এখানে সব ধরনের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। বর্তমানে এখানে প্রায় ১০ হাজার বাড়ি রয়েছে যেখানে প্রায় ৩০০০ মানুষ বসবাস করে।
জানা গেছে, একটা সময়ে এখানে প্রায় ২০ হাজার মানুষের বসবাস ছিল। কিন্তু আধুনিক সুযোগ সুবিধা পেতে ও কাজের সন্ধানে অনেকেই এলাকা ছেড়ে চলে যান।
জানা গেছে, গ্রামটি এমনভাবে নকশা করা হয়েছে যে এটা ভূমিকম্প ও বাইরে থেকে আসা শব্দদূষণ প্রতিরোধ করতে পারে। এই গ্রামে সব শ্রেণির মানুষই বসবাস করে।গ্রামের কিছু অধিবাসী ধনী হওয়ায় তাদের বাড়িগুলো আধুনিক সজ্জায় সজ্জিত করা আছে।
বিশেষজ্ঞদের মতে, গ্রামটি নকশা একই সঙ্গে নান্দনিক এবং বিজ্ঞানস্মত। এই গ্রামের বাড়িগুলোতে যে দেওয়াল আছে সেসব এতটাই পুরু যে বন্যাও সহ্য করতে পারে। মাটির নীচের এই বাড়িগুলো গ্রামটিকে অতিরিক্ত তাপ থেকে রক্ষা করে।
এই গ্রামে গরমের সময় তাপমাত্রা থাকে ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস , আর শীতের সময় এখানকার তাপমাত্রা থাকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
গ্রামটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব বুঝে ২০১১ সাল থেকে এটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে স্থানীয় প্রশাসন। বর্তমানে মাটির নীচের এই ঘরগুলিতে বিদ্যুৎ সংযোগসহ সব রকম আধুনিক সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে পর্যকদের থাকার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট