চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৫:৩৩ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক হ ঢাকা অফিস

ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল মন্ত্রিসভায় পাস

দীর্ঘদিনের বিতর্কের পর অবশেষে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পাস হয়েছে ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল’ (সিটিজেনশিপ এমেন্ডমেন্ট বিল)। গতকাল বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই বিলে অনুমোদন দিয়েছে বলে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে। আগামী সপ্তাহে এই বিলটি সংসদে উত্থাপন করার কথা রয়েছে। বিতর্কিত এই বিলে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়া অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দেয়ার কথা থাকলেও বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাড়ি জমানো মুসলিম শরণার্থীদের ব্যাপারে এই বিলে কিছুই বলা হয়নি।

এরঅগে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল-২০১৬ গত লোকসভায় পাস করাতে ব্যর্থ হয় দেশটির ক্ষমতাসীন সরকার। পরে সংসদের একটি যৌথ কমিটি দ্বারা বিলটির তদন্ত হয়েছিল। দেশটির মন্ত্রিসভায় বিলটি অনুমোদন পাওয়ায় আগামী সপ্তাহে তা সংসদে উঠতে পারে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। ভারতের বিতর্কিত এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে আসামসহ দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়েছিল। কিন্তু দেশটির ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারের অন্যতম প্রতিশ্রুতি ছিল এটির বাস্তবায়ন।

বিলটি সংসদের উচ্চকক্ষ লোকসভায় পাস হলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান থেকে ভারতে পাড়ি জমানো হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি এবং খ্রিষ্টানরা ভারতীয় নাগরিকত্বের পথ প্রশস্ত হবে। সংসদে এই আইন পাস হলে এসব শরণার্থীদের নাগরিকত্ব প্রদানের জন্য দেশটির ১৯৯৫ সালের নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করা হবে। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা (এনআরসি) বাস্তবায়ন করে সব অনুপ্রবেশকারীকে ভারত থেকে তাড়িয়ে দেয়া হবে। প্রথমবারের মতো অনুপ্রবেশকারীদের দেশ থেকে তাড়িয়ে দেয়ার সময়সীমা উল্লেখ করে অমিত শাহ বলেন, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগেই সারা দেশেই জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকার বাস্তবায়ন হবে।

এনডিটিভি বলেছে, এই বিলের লক্ষ্য হল হিন্দু, খ্রিস্টান, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ ও পার্সী এই ৬টি সম্প্রদায়কে ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদান করা। এই বিলে নির্বাচিত বিভাগগুলিতে অবৈধ অভিবাসীদের ছাড় দেয়ার জন্য বিদ্যমান আইনটি সংশোধন করা হয়েছে। তবে বিরোধীরা এই বিলটিকে মুসলমানদের বাদ দেওয়া নিয়ে দেশের ধর্মনিরপেক্ষ নীতির বিরুদ্ধে নেওয়া পদক্ষেপ হিসাবে সমালোচনা করেছে। এই বিলের বিরুদ্ধে দেশটির আসামসহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়েছিল।

এদিকে নতুন নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে তীব্র বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে আসামসহ ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চল। গত সোমবার বিজেপির সঙ্গে রাজনৈতিক জোট থেকে বেরিয়ে যাবারও ঘোষণা দিয়েছে অসম গণ পরিষদ। এরপরেই আসামে স্থানীয় সংগঠনগুলোর ডাকে গত মঙ্গলবার অর্ধদিবস বন্ধ পালিত হয়। ত্রিপুরায় আন্দোলনকারীদের সাথে সংঘর্ষে দু’জন গুলিবিদ্ধ হওয়ার সংবাদ দিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম।

The Post Viewed By: 36 People

সম্পর্কিত পোস্ট