চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১২ নভেম্বর, ২০১৯ | ১:৪৩ পূর্বাহ্ন

অভিশংসন তদন্তের মুখে ট্রাম্প কাল থেকে প্রকাশ্য তদন্ত শুরু

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন তদন্ত আগামীকাল থেকে প্রকাশ্যে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।
এর ফলে আরও চাপের মুখে পড়লেন ট্রাম্প। যদিও এখনও তার দল ও সমর্থকরা প্রেসিডেন্টের প্রতি অব্যাহত আনুগত্য প্রকাশ করে চলেছেন।
অভিশংসন বা ইমপিচমেন্টের মাধ্যমে কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করা সহজ কাজ নয়। পার্লামেন্টর উভয় কক্ষে যথেষ্ট সমর্থন না পেলে এমন পদক্ষেপ ব্যর্থ হয়ে যায়। এর অর্থ হচ্ছে কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনের মাধ্যমে সরাতে হলে তার নিজ দলের পর্যাপ্ত সংখ্যক সদস্যকে তার বিরুদ্ধে ভোট দিতে হবে।

দলীয় স্বার্থের উর্ধ্বে উঠে কেবল দেশের স্বার্থে এমন বিরল অবস্থান নিলে তবেই বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাসীন ব্যক্তিকে পদচ্যুত করা সম্ভব। কখনও কখনও বিপুল সংখ্যক জনমতের কারণে দলীয় এমপিরা এমন অবস্থান গ্রহণ করতে বাধ্য হয়ে থাকেন। তবে বর্তমানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কে দেশের মানুষ এমন ধারণা পোষণ করছেন কিনা, সেটি এখনও নিশ্চিত নয়। চলতি সপ্তাহে ইমপিচমেন্ট তদন্ত শুরু হওয়ার পর তার ইঙ্গিত মিলবে।
মার্কিন পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষে প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে ইম্পিচমেন্ট তদন্তের শুনানি চলছে। রুদ্ধদ্বার কক্ষে অনেক ব্যক্তির কাছ থেকে সাক্ষ্য প্রমাণ সংগ্রহের চেষ্টা চালিয়েছে সংশ্লিষ্ট সংসদীয় কমিটি। বুধবার থেকে প্রকাশ্যে সেই পর্ব শুরু হবে। মার্কিন টেলিভিশনে সেই ঘটনা সরাসরি সম্প্রচারিত হবে বলে জানা গেছে।

এর আগে মাত্র একবারই কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছিলো। ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারির জের ধরে ১৯৪৩ সালে অভিশংসনের মাধ্যমে পতন ঘটেছিলো তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের। সিনেটে ওয়াটারগেট শুনানির পর তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছিলেন। তবে আমেরিকার মানুষ আবার এমন ঘটনার সাক্ষী হবে কিনা সে বিষয়ে এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না।
১৯৪৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষ টেলিভিশনে প্রেসিডেন্ট নিক্সনের বিরুদ্ধে আনীত অভিশংসনের ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছিল। এরপর ১৯৯৮ সালে বিল ক্লিন্টনের বিরুদ্ধে তদন্ত নিয়েও মার্কিনীদের ব্যাপক আগ্রহ দেখা গিয়েছিল। বর্তমানে টেলিভিশনের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও উত্তপ্ত হয়ে উঠবে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে।

The Post Viewed By: 84 People

সম্পর্কিত পোস্ট