চট্টগ্রাম রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ৩:২৩ পিএম

মৃত্যুর আগে আবেগঘন চিঠি ফিলিস্তিনি কারাবন্দির

ইসরায়েল বাহিনীর হাতে বন্দি স্ত্রীকে দেখতে এসে কারারুদ্ধ হয়েছিলেন বাসসাম আল-সায়েশ। সম্প্রতি ইসরায়েলি বাহিনীর অত্যাচারে কারাগারেই মৃত্যুবরণ করেন ৪৭ বছর বয়সী এই ফিলিস্তিনি।

ইসরায়েলের কারাগার থেকে দেশের জন্য নিবেদিতপ্রাণ এ মুসলিম বন্দি মৃত্যুর আগে লিখেছেন এক আবেগঘন চিঠি।  যাতে রয়েছে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হওয়ার মতো বাণী।

‘আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লা ‘

হয়তো তোমাদের বলা এই আমার শেষ কথা, আমি জীবনের শেষ দিনগুলোর একেবারেই শেষ মুহূর্তে, শ্বাস-প্রশ্বাসের অন্তিমকালে। আমার প্রথম কথা- ‘আমি তোমাদের সবাইকে ভালবাসি’।

আমার মাতৃভূমি, আমার দেশের প্রতি শান্তি ও রহমত বর্ষিত হোক। নাবলুসের উপর নাজিল হোক আল্লাহর রহমত। আমার সেসব স্মৃতিসমূহ অমলিন থাকুক যেগুলো মাতৃভূমির সঙ্গে আমার ভালোবাসাকে দৃঢ় করেছে। আমার পরিবার-প্রতিবেশীকে সালাম। আমার মসজিদ-মিহরাব, জামিয়া ও বন্ধুদের উপর প্রশান্তির বৃষ্টি ঝরুক।

যারা সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও আমাকে দুর্দিনে সাহায্য করেনি তাদের কথা বাদই দিলাম, তবে তোমাদের কাছে আমার শেষ ওসিয়ত ও উপদেশ-

‘ইসরায়েলের কারাগারে আমার অসুস্থ বন্দি ভাইদের জুলুম-অত্যাচার ও সীমাহীন ব্যথা-বেদনার অন্ধকার ওই কারাপ্রকোষ্ঠে ফেলে রাখতে দিও না। তোমাদের কাছে আমার আকুল আবেদন- ইসরায়েলের কারাগার থেকে ফিলিস্তিনি বন্দিদের মুক্ত করে আমার প্রতি রহম করো তোমরা।’

প্রসঙ্গত, ইসরায়েলের এক সেনা কর্মকর্তাকে হত্যার অভিযোগে ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর থেকে বাসসাম আল-সায়েশ-এর স্ত্রীকে আটক করা হয়। আর স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসে তিনি গ্রেপ্তার হন ।

বহুদিন কারাভোগের পর গেল রবিবার কারাগারে অত্যাচার, নির্যাতনে ও বিনাচিকিৎসায় মারা গেছেন বাসসাম আল-সায়েশ।

পূর্বকোণ/তাসফিয়া

The Post Viewed By: 115 People

সম্পর্কিত পোস্ট