চট্টগ্রাম সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২৩

সর্বশেষ:

হামবুর্গ বিমানবন্দরে অবশেষে জিম্মি নাটকের অবসান

অনলাইন ডেস্ক

৬ নভেম্বর, ২০২৩ | ১:৩৪ অপরাহ্ণ

জার্মানির হামবুর্গ বিমানবন্দরে প্রায় ১৮ ঘণ্টা পর কোনো ধরণের রক্তপাত ছাড়াই অবসান হয়েছে জিম্মি নাটকের। ঘটনার হোতা পুলিশের কাছে বিনা বাধায় আত্মসমর্পণ করেছেন। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে তার সঙ্গে থাকা শিশুটিকে।

 

শনিবার (৪ নভেম্বর)  রাতে ওই ব্যক্তি  নিজের চার বছরের মেয়েকে নিয়ে গাড়ি চালিয়ে হামবুর্গ বিমানবন্দরের নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে টারমাকে গিয়ে একটি উড়োজাহাজের নিচে আশ্রয় নেয়। তার হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। এ ঘটনায় প্রায় ১৮ ঘণ্টা ধরে বিমানবন্দর বন্ধ ছিল। 

 

পুলিশ জানায়, ওই ব্যক্তি দুইবার আকাশে গুলি ছোড়েন এবং গাড়ি থেকে একাধিক জ্বলন্ত বোতল ছুড়ে মারেন।

 

পরে জানা যায়, ওই ব্যক্তি যে উড়োজাহাজটির নিচে আশ্রয় নিয়েছেন সেটি তার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি যাত্রীভর্তি বাণিজ্যিক ফ্লাইট ছিল, যেটি সে সময় উড্ডয়নের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। উড়োজাহাজটি থেকে পরে যাত্রীদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়।

 

এক ব্যক্তি গাড়ি চালিয়ে নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে হামবুর্গ বিমানবন্দরের টারমাকে ঢুকে গেলে পুলিশ ওই এলাকা ঘিরে ফেলে। 

 

এ কাণ্ডের কারণে বিমানবন্দরের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হলে বেশ কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল বা বিলম্বিত হয় এবং বিমানবন্দরে আসা শত শত যাত্রীকে হোটেলে পাঠাতে হয়।

 

পুলিশ শুরুতে ওই ব্যক্তির এ কাণ্ডের উদ্দেশ বুঝতে না পারলেও পরে শিশুটির মা জানায়, সন্তানের হেফাজত নিয়ে তার সঙ্গে তার সাবেক স্বামীর দ্বন্দ্বের কারণে সে এমনটা করেছে।

 

পুলিশ ওই ব্যক্তির সঙ্গে সমঝোতা করা চেষ্টা করে। কিন্তু ওই ব্যক্তি প্রথমে পুলিশের দেওয়া শর্ত মানতে রাজি হয়নি এবং মেয়েকে নিয়ে তুরস্ক চলে যাওয়ার দাবি জানায়।

 

ওই ব্যক্তি তুরস্কের নাগরিক। যার বিরুদ্ধে গত বছরও মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। তিনি সাবেক স্ত্রীর অনুমতি না নিয়েই মেয়েকে নিয়ে তুরস্ক চলে গিয়েছিলেন। পরে পুলিশের সহায়তায় শিশুটির মা শিশুটিকে জার্মানিতে ফেরত আনে।

 

জিম্মি কাণ্ডে রোববারও অনেকটা সময় ধরে অচল ছিল জার্মানির হামবুর্গ বিমানবন্দর। বন্ধ ছিল ফ্লাইট উঠা-নামা। ফলে বহু যাত্রী বিমানবন্দরে আটকে পড়েন।

 

এ ঘটনার পর হামবুর্গ বিমানবন্দরের কার্যক্রম রোববার পুনরায় চালু হলেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় ফ্লাইট তারপরও বিলম্বিত হয়। রোববার হামবুর্গ বিমানবন্দর থেকে মোট ২৮৬ ফ্লাইটের প্রায় সাড়ে ৩৪ হাজার যাত্রী নিয়ে উঠা-নামা করার কথা ছিল।

 

জিম্মি কাণ্ডের কারণে ঠিক কতটি ফ্লাইট বাতিল বা বিলম্বিত হয়েছে তা জানা যায়নি।

 

তথ্যসূত্র- বিবিসি

 

পূর্বকোণ/আরডি

শেয়ার করুন